28 C
Kolkata

Arpita Mukherjee: এবার অর্পিতার নামে টেক্সটাইল সংস্থার হদিশ

নিজস্ব প্রতিবেদন: এসএসি দুর্নীতিতে পরতে-পরতে রহস্য। পাহাড়-প্রমাণ এই দুর্নীতির শিকড় যে কতটা গভীরে পৌঁছেছে তা এখনও বুঝে উঠতে পারছেন না দুঁদে ইডি অফিসাররাও। রাশি-রাশি টাকা, সোনা, হীরে, রুপো মিলেছে পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে। এমনকি, অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বেলঘরিয়ার রথতোলার ফ্ল্যাটে মিলেছে ২ টি রিয়েল এস্টেট সংস্থার নথি। তাহলে কি এসএসসি-তে চাকরির নামে তোলা টাকা রিয়েল এস্টেট কোম্পানিতেও বিনিয়োগ করা হয়েছিল? এত কিছু প্রশ্নের মধ্যে এবার অর্পিতার নামে টেক্সটাইল সংস্থার হদিশ পাওয়া গেল। তিনটি কোম্পানির ঠিকানা অর্থাৎ রিয়েল এস্টেট এবং টেক্সটাইল সংস্থার অফিসিয়াল ঠিকানা বেলঘরিয়ার রথতলার ফ্ল্যাট।

ইডি সূত্রে খবর, একই ঠিকানায় দুটি রিয়েল এস্টেট সংস্থা ও একটি টেক্সটাইল সংস্থার কর্পোরেট মন্ত্রকে নথিভুক্তিকরণ হয় ২০১২ সালে। ৩টি সংস্থারই বার্ষিক সাধারণ সভা হয়েছিল একই দিনে, ২০২১-এর ৩০ নভেম্বর। ব্যালান্স শিটও একইদিনে ২০২১-এর ৩১ মার্চ ফাইল করা হয়। জানা যায়, টেক্সটাইল কোম্পানির শেয়ার ক্যাপিটাল ছিল ২ লক্ষ টাকা, অন্যদিকে, একই ঠিকানায় চলা দুটি রিয়েল এস্টেট কোম্পানির শেয়ার ক্যাপিটাল ছিল একলক্ষ টাকা করে।

আরও পড়ুন:  Breaking : উদ্বোধন হয়ে গেল টালা ব্রিজ
আরও পড়ুন:  Subiresh Bhattacharya : উপাচার্য সুবীরেশ জেলেই থাকবেন আগামী ১০ দিন

উল্লেখ্য, সিজিও কমপ্লেক্সে ইডির প্রশ্নের উত্তরে বারবার ভেঙে পড়ছেন অর্পিতা। আজ শনিবার সকাল থেকে দফায় দফায় জেরা করা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই অর্পিতার মুখোপাধ্যায়ের আটটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করেছে ইডি। পাশাপাশি, শান্তিনিকেতনে অপা, ইচ্ছে, তিতলি ও লাবণ্য নামে ৩টি বাড়ি ও গেস্টহাউসএর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। কার এই গেস্টহাউজগুলি ? এই সম্পত্তির সঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায়-অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের কোনও যোগসূত্র আছে ? এখন সেই নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

গত সপ্তাহের শুক্রবার ইডি সাত সকালেই হানা দেয় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে। তখন থেকেই শুরু হয় টানটান উত্তেজনা। এরই মধ্যে সন্ধ্যাবেলায় ইডির তরফ থেকে জানানো হয়, পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে ২১ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা নগদ। এই টাকা উদ্ধারের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই অর্পিতার বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাট থেকে নতুন করে উদ্ধার হয় ২৭ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা। একের পর এক জায়গা থেকে নগদ টাকা উদ্ধারের ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যের বাসিন্দাদের কাছে কৌতূহলের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর কত আছে এই প্রশ্নই ঘোরাফেরা করছে আমজনতার মধ্যে। নগদ টাকা ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় নামে বেনামে তাদের সম্পত্তি রয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন:  Kurmi Protest: ৯৬ ঘন্টা স্তব্ধ জাতীয় সড়ক
আরও পড়ুন:  Manik Bhatterjee : আরও দুদিনের 'রক্ষা কবচ' মানিকের

Related posts:

Featured article

%d bloggers like this: