22 C
Kolkata

রেড রোডে কুচকাওয়াজের মহড়া চলাকালীন ফের দুর্ঘটনা !

নিজস্ব সংবাদদাতা :: ২০১৬ সালে রেড রোডে বায়ুসেনা আধিকারিকের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা এখনও ফিকে হয়ে যায়নি শহরবাসীর মন থেকে । আবারো একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল মঙ্গলবার সকালে, সেই রেড রোডের বুকেই। সৌভাগ্য এবার আর কোনও জীবনহানীর ঘটনা ঘটেনি। তবে আবারও প্রশ্নের মুখে , রেড রোডের বুকে কুচকাওয়াজ চলাকালীন নিরাপত্তার বিষয়টি ।মঙ্গলবার ভোরে নীল রঙের একটি বেপরোয়া গাড়ি খিদিরপুরের দিক থেকে এসে ব্যারিকেড ভেঙে রেড রোডে ঢোকার চেষ্টা করে। যদিও এদিনের ঘটনায় কেউ জখম হয়নি। গ্রেফতার করা হয়েছে গাড়ির চালক অরিত্র সান্যালকে। অরিত্র কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। মায়ের গাড়ি নিয়ে জয়রাইডে বেরিয়েছিল সে। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে গাড়িটিকে ।পুলিশ সূত্রে খবর, স্বাধীনতা দিবসের কুচকাওয়াজের প্রস্তুতির জন্য গত ক’দিন ধরেই রোজ ভোর থেকে রেড রোড বন্ধ রাখা হচ্ছে। এদিন ভোর সাড়ে ছটা নাগাদ খিদিরপুরের দিক থেকে নীল রঙের সেডান গাড়িটি বেপরোয়াভাবে ছুটে আসতে থাকে। ফোর্ট উইলিয়ামের সামনে থেকে গাড়িটি অন্যদিক না ঘুরিয়ে সোজা রেড রোডের দিকে ছুটে যেতে থাকে। ব্যারিকেড দেওয়া দেখেও ছুটে গেলে প্রথমে গার্ডরেলে ধাক্কা মারে গাড়িটি। তারপর গাড়ি ঘুরিয়ে পালাতে গিয়ে পুলিশের বাসে ধাক্কা মারে। কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা ছুটে গিয়ে সঙ্গে সঙ্গে গাড়িটিকে থামায়। চালককে আটক করে। এদিনও সেই রকমই গার্ডরেল দিয়ে রাস্তা আটকানো ছিল। কলকাতা পুলিশের দেওয়া সেই ব্যারিকেডের কারণেই আজকে বড়োসড়ো অঘটন ঘটেনি। তবে যে গাড়িচালক ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে কলকাতা পুলিশের আধিকারিকেরা জানিয়েছেন।পুলিশি জেরার মুখে অভিযুক্ত অরিত্র দাবি করেছে, ভুলবশত সে রেড রোডের দিকে গাড়িতে ঘুরিয়ে ফেলেছিল। শেষ মুহূর্তে গাড়িটি ঘোরানোর চেষ্টা করলেও আর কোনও উপায় ছিল না। তবে ব্যারিকেড ভেঙে রেড রোডের ভেতরে গাড়ি নিয়ে ঢোকার কোন উদ্দেশ্য তার ছিল না।

আরও পড়ুন:  SSKM : এসএসকেএম থেকে এ নিখোঁজ রুগী !

Featured article

%d bloggers like this: