28 C
Kolkata

AJC Bose College : কর্ণাটকের পর খাস কলকাতার কলেজে এবার পোশাক নিয়ে বিতর্ক

নিজস্ব প্রতিবেদন : দেশজুড়ে হিজাব বিতর্কের মধ্যে এবার খাস কলকাতায় পোশাক ফতোয়া। টর্ন জিনস পরে প্রবেশ করা যাবে না আর কলেজে। ফতোয়া জারি করা হল বাংলার কলেজে। সাম্প্রতিক আচার্য জগদীশ চন্দ্র বোস কলেজের এই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। তারপরই বিতর্কের সূত্রপাত। কলেজ কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী , এই নিয়ম না মানলে সংশ্লিষ্ট পড়ুয়াকে টিসি দেওয়া হবে।

গত ২৩ মার্চ কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে এই বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। এই নির্দেশ অনুযায়ী শুধু মাত্র কলেজ পড়ুয়া নয়, এই নিয়ম মানতে হবে কলেজের কর্মীদেরও। কলেজের অধ্যক্ষের তরফ থেকে দেওয়া ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কোনো রকম ছেঁড়া পোশাক পরে কলেজে প্রবেশ করা যাবে না। বিশেষ করে ছেঁড়া প্যান্ট। এই ধরনের পোশাক ভদ্র নয়। কেউ যদি এই নিয়ম না মানে তার বিরুদ্ধে করা পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:  Alipur Museum: মমতার মুখে বাংলার জয়জয়কার
আরও পড়ুন:  Tala Bridge : পুজো নয় মহালয়ার আগেই উদ্বোধন টালা ব্রিজের

কলেজের অধ্যক্ষ পূর্ণ চন্দ্র মাইতি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই ধরনের পোশাক পরা শোভনীয় নয়। দিনের পর দিন অনেক পড়ুয়াকে ওই ছেঁড়া পোশাক পরে কলেজে আস্তে দেখেছেন তিনি। এমনকি তাঁর ঘরেও প্রবেশ করেছিলেন কয়েকজন পড়ুয়া । আর তাদের পোশাক দেখে সেই সময় ঘর থেকে বের করে দেন তিনি। শালীন পোশাক বলে মনে হয়নি বলেই ঘর থেকে বের করে দিয়েছিলেন সেই পড়ুয়াদের। কলেজের পক্ষে ওই ধরনেপ পোশাক অশোভনীয় । এমন তাই মনে করেন তিনি। আর তাই এই নির্দেশিকা জারি করেছেন।

অধ্যক্ষ জানিয়েছেন, তাঁর এই সিদ্ধান্তকে অনেকেই স্বাগত করেছেন। পোশাক প্রত্যেকের পছন্দ হলেও ‘ফ্যাশন’ করার জায়গা কলেজ নয়। ‘ফ্যাশন’ কলেজের বাইরেই থাকা উচিত। আর এর সাথেই তিনি সাফ জানিয়ে দেন, ” নির্দেশিকা না মানা হলে অভিভাবককে ডেকে কলেজ থেকে বহিষ্কার করা হবে। “

আরও পড়ুন:  Dengue: পুজোতে হানা ডেঙ্গুর, আতঙ্কিত চিকিৎসকেরা

বস্তুত , বহু বছর আগে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শুভঙ্কর চক্রবর্তী মিনিস্কার্ট নিষিদ্ধ করেছিলেন রবীন্দ্রভারতী চত্বরে। তবে এবারে এমন পোশাক ফতোয়া নিশ্চিতভাবেই নজিরবিহীন ৷

আরও পড়ুন:  Saltlake: বেতন বাড়ানোর দাবিতে বিক্ষোভ অস্থায়ী বাস কর্মীদের, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

Featured article

%d bloggers like this: