21 C
Kolkata

Dilip Ghosh: ‘পাপের ফলে মুখ দিয়ে শুদ্ধ সংস্কৃত বেরোয় না’, কাকে নিশানা করলেন দিলীপ ঘোষ ?

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রত্যেকদিনই সাতসকালে ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণ করতে আসেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর সেখান থেকে রাজ্য-রাজনীতি থেকে শুরু করে কটাক্ষ, চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন তিনি। আজ মঙ্গলবারও তার অন্যথা হল না। এদিনও নানা বিষয়ে মুখ খোলেন তিনি। মদন মিত্র থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফের একবার তাঁদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

দিলীপ ঘোষের ছবি টাঙিয়ে গঙ্গার ঘাটে তর্পণ তৃণমূলের বিধায়ক মদন মিত্রের। এই প্রসঙ্গে দিলীপের প্রতিক্রিয়া, ‘তৃণমূল রাজনীতিটা কোথায় নিয়ে গেছে এটা দিয়েই বোঝা যাচ্ছে। তিনি অতি সাধারণ লোক নন, কী করবেন তার একটা সীমা থাকা উচিত। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে এত পতন আগে দেখা যায়নি। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণাতেই এই সমস্ত কিছু হচ্ছে’। তার কথায়, “দুর্গাপূজার পবিত্রতা নষ্ট করছেন মুখ্যমন্ত্রী। পুজো নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে।” তিনি আরও বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীর সব কাজ উল্টো, চণ্ডীপাঠও উল্টো। টাকা দিয়েছেন এখন উদ্বোধন করতে দিতে হবে যেদিন বলবেন সেদিনই করতে দিতে হবে। আর সেটাই করছেন মুখ্যমন্ত্রী দুর্গাপূজার পবিত্রতাকে নষ্ট করে দিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি”।

মুখ্যমন্ত্রীর ভুল মন্ত্র উচ্চারন প্রসঙ্গে দিলীপ বলেন, ‘প্রতিবার উনি ভুল বলেন। ভুল বলার জন্য বাংলার এই অধঃপতন। মন্ত্র ভুল বললে।লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হয়। উনি তো উর্দু , তামিল, তেলেগু সব জানেন। সংস্কৃত জানেন না বোধহয়। পাপের ফলে মুখ দিয়ে শুদ্ধ সংস্কৃত বেরোয় না। উনি মনে হয় পাবলিসিটির জন্য করেন।’ তিনি আরও বলেন, মনে হয় পিছন থেকে কেউ বলে। এবার উনি শুনতে পাননি। এই ধরনের ওঁচা কাজ মুখ্যমন্ত্রীর শোভা পায়না। উনি খালি একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নয় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী লোকে অনেক আশা নিয়ে তিনবার জিতিয়েছে। উনি আমাদের কালচার নিয়ে এভাবে ছেলেখেলা না করলেই ভালো করতেন।’

আরও পড়ুন:  Liquor: বসিরহাটের পঞ্চায়েত ক্যান্টিনে মদের আসর

আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের মামলায় রাজ্য সরকার ব্যয় করেছে। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘শুধু আলাপন বাবুর মামলায় নয় । লক্ষ লক্ষ টাকা পেমেন্ট হয়েছে তার আগে । সারদা কাণ্ডে রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে যে কেস লড়েছে তাতে ৬ কোটি টাকার খরচ করেছে। কার টাকা? রাজ্য সরকারের টাকা ? কারণ নেতা-মন্ত্রীদের বাঁচাতে হবে .আমার মনে হয় কেষ্ট- মদনসহ বাকিদের যে মামলা চলছে সেগুলিও আমাদের ট্যাক্সের টাকায় মমতা ব্যানার্জি লড়ছেন । তবে সেই অধিকার তাকে কেউ দেয়নি’।

যোগ্য অথচ নিয়োগ পাননি এইরকম বহু চাকরিপ্রার্থীরা এখনও পর্যন্ত গান্ধী মূর্তি কিংবা মাতঙ্গিনী মূর্তির পদতলে অবস্থান বিক্ষোভ করে চলেছেন। তাদের নিয়োগ দেওয়ার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছে কলকাতা হাইকোর্ট । দিলীপ ঘোষ এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘ এই সরকার চাকরি দেবে না। দিলে কোর্ট দেবে । মাননীয় বিচারপতি অনেক চেষ্টা করছেন ন্যায় দেওয়ার । কিন্তু কতটা সম্ভব হবে জানি না । তবে প্রক্রিয়া চলছে কোর্ট চেষ্টা করছে’।

আরও পড়ুন:  Suvendu Adhikari: অভিষেকের সভার বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের শুভেন্দুর

পরিবহন মন্ত্রী বদল, কর্মবিরতি অস্থায়ী কর্মীদের। দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার অস্থায়ী কর্মীরা বিগত প্রায় ৭ দিন ধরে তাদের স্থায়ীকরণের দাবি সহ কয়েক দফা দাবি নিয়ে আন্দোলন করে চলেছেন । যদিও তাদের কিছু দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে পরিবহন মন্ত্রীর তরফ থেকে এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ প্রশ্ন তোলেন যে, এই অস্থায়ী কর্মীদের নিয়োগ করেছিল কারা? নিশ্চয়ই এক্ষেত্রেও টাকা দিয়ে নিয়োগ করা হয়েছিল বলেই দাবি করেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘ এ রাজ্যে কোন সমস্যা মিটবে না । কেউ মেটাবে না । পশ্চিমবাংলার কোন সমস্যার সমাধান হবে না বরং সবাই মিলে সমস্যা তৈরি করছেন যিনি মেটাবেন তিনি নিজেই তো একটি সমস্যা, মুখ্যমন্ত্রী’।

Featured article

%d bloggers like this: