28 C
Kolkata

হানের সঙ্গে ISI যোগের আশঙ্কা

নিজস্ব সংবাদদাতা : মালদহে ধৃত চিনা নাগরিক নিয়ে উঠছে বহু প্রশ্ন।ভারতের অন্যান্য জায়গায় বেনামে বহু সম্পত্তি রয়েছে ধৃত হান জানুইয়ের। এমনটাই মনে করছে গোয়েন্দার। তার উপরে হানের ল্যাপটপটি এখনও খুলতে পারেননি গোয়েন্দারা। এসব নিয়েই আজ সল্টলেকের এসটিএফের দফতরে তাকে জেরা করছেন গোয়েন্দারা। হানকে জেরা করে প্রচুর ভুয়ো সংস্থার হদিশ পেয়েছেন গোয়েন্দারা। ওই ভুয়ো সংস্থার নাম করে বেশি সুদ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে লগ্নিকারীদের থেকে টাকা তুলত হান ও তাঁর সঙ্গীরা। আর সেই টাকা বিটকয়েনের মাধ্যমে চিনে পাচার করা হত বলে জানতে পারছেন তদন্তকারীরা। এমনকি, বাংলাদেশ এবং মায়ানমারে টাকা লেনদেন হত বলে সন্দেহ করছেন গোয়েন্দারা। সেইজন্য হাওয়ালা চক্রের সাহায্য নিত বলে অনুমান।ওই জালিয়াতির টাকা ভারত বিরোধী কোনও কার্যকলাপে কাজে লাগানো হত কিনা তারও প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে পাকিস্তানের চর আইএসআইয়ের সঙ্গে এদের যোগাযোগ রয়েছে কিনা সেই দিক খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দারা। ভারত থেকে পাচার হওয়া ১৩০০ সিম কার্ডের সাহায্যেও জালিয়াতি করত তারা।গুরুগ্রামে হোটেল ব্যবসার আড়ালে ভারত, বাংলাদেশ-সহ এই উপমহাদেশে সে কোনও হাওয়ালা চক্র চালাত কিনা তা খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দাররা। এক্ষেত্রে আরও একটি সমস্যা হল, হানের দুটি আইফোন। সেগুলি এখনও খোলা যায়নি। সেদুটি খুলতে পারলে অনেক প্রশ্নের উত্তর মিলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:  NIA Raid West Bengal: দুর্নীতি দমনে পশ্চিমবঙ্গে এনআইএ

Featured article

%d bloggers like this: