24 C
Kolkata

সংগঠন থেকে সুব্রতকে ছাঁটল বিজেপি

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিজেপি-র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ বদল হল। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সুব্রত চট্টোপাধ্যায়কে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল। রাজ্য সভাপতির পরেই দলের সংগঠনে সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) পদটি গুরুত্বপূর্ণ। এই পদে যিনি থাকেন তিনিই দৈনন্দিন সাংগঠনিক কাজ দেখভাল করেন। এতদিন এই পদে ছিলেন সুব্রত চট্টোপাধ্যায়। ঘোষণার পর তিনি নবাগত উত্তরসূরী অমিতাভ চক্রবর্তীকে অভিনন্দন ও স্বাগত জানিয়ে টুইটে লেখেন, ‘সাত বছর আমার ওপর আস্থা রাখার জন্য দলনেতাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। নবাগতর শুভ কামনা করছি’। সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তী সঙ্ঘের লোক। চুটিয়ে এবিভিপি-ও করেছেন। বিজেপি-র সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অরুণ সিং লিখিতভাবে জানান, দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার নির্দেশক্রমে এটি কার্যকর করা হল। অনেকে বলছেন, পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনের আগে এই রদবদল ‘তাত্পর্যপূর্ণ এবং ইঙ্গিতবাহী’। অপসারিত সুব্রতের সঙ্গে রাজ্য সভাপতি দিলীপের সম্পর্ক যথেষ্ট ভাল ছিল। রাজারহাটের যে বাড়িতে দিলীপ সম্প্রতি থাকতে শুরু করেছিলেন, সেই বাড়িতে থাকতেন সুব্রতও। শুধু তা-ই নয়, বিভিন্ন এলাকায় সফরে গিয়েও দিলীপ-সুব্রত একত্রে থাকতেন। দীর্ঘদিন ধরেই সুব্রত চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ যাচ্ছিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। তাঁর অপসারণ নিয়ে গতবছর থেকেই চলছিল জল্পনা। কিন্তু সুব্রতবাবুর ঢাল হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। এমনকি সুব্রত চট্টোপাধ্যায়কে সরানো হলে তিনি ইস্তফা দেবেন এমন হুঁশিয়ারিও দিয়ে রেখেছিলেন দিলীপ ঘোষ। যদিও সেই হুঁশিয়ারিকে গুরুত্ব দিলেন না বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

আরও পড়ুন:  Accident: ই-এম বাইপাসে দুর্ঘটনা! দুরন্ত গতিতে আসা গাড়ির ধাক্কা পুলিশকর্মীকে

Featured article

%d bloggers like this: