24 C
Kolkata

Kolkata Metro: কলকাতার মেট্রো জন্য বরাদ্দ ২ হাজার ৩০০ কোটি

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ কলকাতায় নির্মীয়মাণ চারটি মেট্রো প্রকল্পের জন্য ২৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করল কেন্দ্রীয় সরকার। বুধবার সংসদে ২০২২-’২৩ অর্থবর্ষের বাজেটে দেশের রেল প্রকল্পগুলির জন্য ব্যয় বরাদ্দের প্রস্তাব পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী। তাতেই মহানগরীতে চলা চারটি মেট্রো প্রকল্পের জন্য এই টাকা বরাদ্দ হয়েছে। রেলমন্ত্রী মঙ্গলবার সাফ জানিয়েছেন, যে সব রেল প্রকল্পে জমিজটের সমস্যা নেই, সেগুলিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের কাজ শেষ করতে টাকার কোনও অভাব হবে না। যদিও জমিজট ও করোনার জেরে কলকাতার এই চারটি মেট্রো প্রকল্প শেষের সময়সীমা একাধিকবার বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু এবার নয়া উদ্যমে কাজ শেষের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্প। আগামী অর্থবর্ষে চারটির মধ্যে এই প্রকল্পেই সব থেকে বেশি টাকা বরাদ্দ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। হাওড়া ময়দান থেকে সেক্টর ফাইভ পর্যন্ত রুটের কাজ দ্রুত শেষ করতে এবারের বাজেটে ১১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে।


ইস্ট-ওয়েস্ট রুটে সেক্টর ফাইভ থেকে ফুলবাগান পর্যন্ত মেট্রো চালু হয়ে গিয়েছে। এবার ওই মেট্রো শিয়ালদহ পর্যন্ত আসার অপেক্ষা। শিয়ালদহ স্টেশনের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি রাজ্যের দমকল বিভাগের কর্তারা স্টেশন পরিদর্শন করেছেন। এবার ফায়ার সেফটি সার্টিফিকেট হাতে এলেই চূড়ান্ত পরিদর্শনের জন্য সিআরএস’র কাছে আবেদন জানাবে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। তারপরই সেক্টর ফাইভ থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত গড়াবে মেট্রোর চাকা। মেট্রো কর্তাদের আশা, মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই এই রুট চালু হয়ে যাবে। অন্যদিকে, নোয়াপাড়া-বারাসত ভায়া বিমানবন্দর মেট্রো প্রকল্পের জন্য এবারের বাজেটে বরাদ্দ করা হয়েছে ৫০৬ কোটি টাকা। কর্তাদের দাবি, এই রুটে জমি অধিগ্রহণ নিয়ে দীর্ঘ টালবাহানা চলেছে। তবে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর সেই জট কাটতে শুরু করেছে। চলছে কাজ। ২০২৪ সালের মধ্যে এই রুটে মেট্রো চলাচলের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। এদিকে, কেন্দ্রীয় বাজেটে দমদম বিমানবন্দর থেকে নিউ গড়িয়া মেট্রো প্রকল্পের জন্য ৩৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। একইভাবে আগামী লোকসভা ভোটের আগে শেষ হতে পারে এই গুরুত্বপূর্ণ মেট্রো রুট। রেল কর্তাদের দাবি, এই রুটে কাজের অগ্রগতি সন্তোষজনক। মেট্রো রেলের জেনারেল ম্যানেজার সংশ্লিষ্ট দু’টি প্রকল্পের উপর ধারাবাহিক নজরদারি চালাচ্ছেন। প্রকল্প এলাকায় সশরীরে গিয়ে কাজের অগ্রগতি খতিয়ে দেখছেন তিনি। সেই রিপোর্টও দিল্লিতে পাঠাচ্ছেন নিয়মিত।

আরও পড়ুন:  Breaking:নাটক চলাকালীন গিরিশ মঞ্চে আগুন

Featured article

%d bloggers like this: