19 C
Kolkata

TET Scam: চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুখবর, পুজোর আগেই টেট নিয়ে বড় নির্দেশ আদালতের

নিজস্ব প্রতিবেদন: পুজোর মুখেই সুখবর। আরও ৬৫ জন প্রার্থীকে চাকরিতে নিয়োগের নির্দেশ আদালতের। নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এর আগে টেট-এর প্রশ্নপত্রে ভুল থাকায় ১৮৭ জনকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। এবার সেই তালিকায় যোগ হল আরও ৬৫ জন। ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাঁদের নিয়োগপত্র দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্কুল শিক্ষাদপ্তরকে।

জানা যায়, ২০১৪ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের নির্ণায়ক পরীক্ষা বা টেটের প্রশ্নপত্রে ৬টি প্রশ্নে ভুল ছিল। এই নিয়ে মামলা হয় কলকাতা হাই কোর্টে। ২০২১ সালে প্রাথমিক শিক্ষা পরিষদকে পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত নম্বর দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। অতিরিক্ত নম্বর দেওয়ার পরই দেখা যায় বহু পরীক্ষার্থী টেটে পাশ করে গিয়েছেন। এবার তাঁদের নিয়োগের নির্দেশ দিল আদালত। আদালতের নির্দেশ, শূন্যপদ নিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্যের স্কুল শিক্ষাদপ্তর। সেই পদে ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিয়োগ করতে হবে সংশ্লিষ্ট টেট উত্তীর্ণদের।

আরও পড়ুন:  South Dinajpur: ক্ষতবিক্ষত এক শ্রমিক

২০১৪ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের টেট দিয়েছিলেন আরও ২৪ জন পরীক্ষার্থী। কিন্তু ২০১৬ সালে ফল প্রকাশ হলে দেখা যায় তাঁরা টেট পাশ করেননি। স্বাভাবিকভাবেই সেই সময় চাকরি পাননি তাঁরা। এর মধ্যে অন্য একটি মামলায় দেখা যায়, ভুল প্রশ্ন থাকায় চাকরিপ্রার্থীদের নম্বর বাড়াতে রাজি হয় পর্ষদ। তারপরই কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন এই ২৩ টেট পরীক্ষার্থী। এরপরই পর্ষদকে ভুল শুধরে তাঁদের নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশ দিয়েছিল হাই কোর্ট। ভুল প্রশ্নে যাঁরা উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন, তাঁদের নম্বর দিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। পর্ষদ আদালতে নিজের ভুল স্বীকারও করেছিল। কিন্তু নম্বর দেওয়া হলেও চাকরি দেওয়া হয়নি। এবার সেই পদেই চাকরিপ্রার্থীদের ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিয়োগ করার নির্দেশ দিলেন বিচারপতি।

আরও পড়ুন:  Jagdeep Dhankhar: মঙ্গলবার কলকাতা সফরে উপরাষ্ট্রপতি

Featured article

%d bloggers like this: