27 C
Kolkata

Covid-19 Cocktail Therapy: কোভিড ঠেকাতে রাজ্যে শুরু হচ্ছে ‘ককটেল থেরাপি ‘

নিজস্ব সংবাদদাতা : সম্প্রতি কোভিড আক্রান্ত হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে। তাঁর ক্ষেত্রে ককটেল থেরাপি ব্যবহার করা হয়। আমেরিকার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কোভিড চিকিৎসার সময় এই পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছিল। এই ওষুধগুলি বেশ খরচসাপেক্ষ। আমাদের রাজ্যে বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে মূলত কোভিড রোগীর ক্ষেত্রে এই ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। তবে এ বার স্বাস্থ্য দফতরের তালিকায় এই চিকিৎসা পদ্ধতি রাখা হল। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের ক্ষেত্রে এই চিকিৎসা ব্যবহার করতে।


১) নয়া চিকিৎসাবিধিতে মনোক্লোনাল অ্যান্টিবডি থেরাপি (ককটেল থেরাপি) ও মলনুপিরাভির, এই দু’টি ওষুধকে রাখা হয়েছে ।
২) স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত তালিকায় এই দুই চিকিৎসা পদ্ধতিকে প্রথম বার অন্তর্ভুক্ত করা হল।
৩) নয়া চিকিৎসাবিধিতে মূলত তিন ধরনের কোভিড রোগীকে চিহ্নিত করে চিকিৎসার ক্ষেত্রে বেশ কিছু পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
৪) এই তিনটি ভাগে রয়েছেন উপসর্গহীন রোগী, লক্ষণবিহীন কোমর্বিড রোগী এবং মৃদু উপর্সগযুক্ত রোগী।
৫) এই ধরনের রোগীদের বাড়িতে বা সেফ হোমে নিভৃতবাসে রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
৬) তবে যদি রোগীদের শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়, ধারাবাহিক ভাবে জ্বর থাকে, বুকে ব্যথা বা মারাত্মক কাশি হতে থাকে তবে তাদের চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রোগীকে হাসপাতালের এইচডিইউ বা আইসিইউ-তে ভর্তি করাতে হবে।
৭) কো-মর্বিড রোগী ছাড়াও যাঁদের ক্ষেত্রে ১০০.৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার বেশি জ্বর, শ্বাস নিতে কষ্ট, বুকে ব্যথা ও দ্রুত মানসিক স্থিতির দ্রুত পরির্বতন হচ্ছে— এই ধরনের রোগীদের ক্ষেত্রেও অক্সিজেনের ব্যবস্থা রাখা নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:  লক্ষাধিক টাকা দিয়েও মেলেনি চাকরি, অবসাদে আত্মঘাতী যুবক
আরও পড়ুন:  Howrah Municipality Area: প্যারাসিটামল নিলেই নথিভুক্ত করতে হবে নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর

নতুন বছরের শুরুতেই রীতিমতো ভয় ধরানো শুরু করল ওমিক্রন ! সম্ভবত করোনার নতুন এই স্ট্রেনের দাপটেই নতুন বছরের প্রথমদিন একলাফে অনেকটা বেড়ে গেল করোনায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা। গত সপ্তাহের শেষদিকে দেশের করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা ঘোরাফেরা করছিল ৭ হাজারের আশেপাশে। মাত্র দিন কয়েকেই পুরোপুরি বদলে গেল ছবিটা। দেশের বর্তমান দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটা ২২ হাজারের বেশি। দিন কয়েক আগে যে অ্যাকটিভ কেস নেমে এসেছিল ৭০ হাজারের আশেপাশে।। সেটাই এখন লাখ পেরিয়ে গিয়েছে।স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২২ হাজার ৭৭৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৪৩১ জন।

Featured article

%d bloggers like this: