29 C
Kolkata

Omicron : ওমিক্রনের নতুন রূপ টেক্কা দিচ্ছে প্রথমটিকে, ছড়িয়ে পড়েছে ৫৭টি দেশে

নিজস্ব সংবাদদাতা : যেসব দেশগুলি ইতিমধ্যেই কোভিড সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া শুরু করেছে তাদেরকে কাছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আবেদন , তারা যেন স্থির এবং ধীর উপায়ে এই কাজ করেন। ডব্লিউএইচও-র জেনারেল সেক্রেটারি টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইয়াসুস জানিয়েছেন, “যেহেতু মাত্র ১০ সপ্তাহ আগে Omicron প্রথম শনাক্ত করা হয়েছিল, প্রায় ৯০ মিলিয়ন কেস WHO-তে রিপোর্ট করা হয়েছে যা ২০২০ তে রিপোর্ট করা সমস্ত কেসের তুলনায় বেশি।

আমরা এখন পৃথিবীর বেশিরভাগ অঞ্চলে মৃত্যুর হারের ক্ষেত্রে খুব উদ্বেগজনক বৃদ্ধি দেখতে পাচ্ছি।” উদ্বেগের এখানেই শেষ নয়। ওমিক্রন সংক্রমণের গতি চিন্তা বাড়িয়েছিল বিশেষজ্ঞদের মনে। এ বার তা দ্বিগুণ করে তুলল ওমিক্রনের সাম্প্রতিকতম রূপ। বিজ্ঞানীদের দাবি, ওমিক্রনের এই নতুন রূপের সংক্রমণ ক্ষমতা সহজেই টেক্কা দিচ্ছে প্রাথমিক সংস্করণটিকে! আরও আশঙ্কার কথা শোনিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। মঙ্গলবার জানিয়েছে, বিশ্বের অন্তত ৫৭টি দেশে ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে নয়া রূপটি।

আরও পড়ুন:  মিসাইল ম্যানের রহস্য মৃত্যু
আরও পড়ুন:  চীনের বিমান লঙ্ঘন করল দেশের আকাশ

ওমিক্রনের ‘সেকেন্ড জেনারেশন ভ্যারিয়েন্ট’ হিসাবে পরিচিত ‘বিএ.২’-এর সংক্রমণ ক্ষমতা ওমিক্রনের প্রাথমিক রূপের চেয়েও বেশি। এই প্রসঙ্গে হু জানায়, তাদের রিপোর্টে উঠে এসেছে বিশ্বের অন্তত ৫৭টি দেশে এই রূপের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে। আগামী দিনে তা আরও বাড়বে।ডব্লিউএইচও-র জেনারেল সেক্রেটারি বিশ্বের কিছু দেশের ধারণার বিষয়ে তার উদ্বেগ পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন।

দেশগুলির ধারণা রয়েছে যে, “ভ্যাকসিনের কারণে এবং ওমিক্রনের উচ্চ সংক্রমণযোগ্যতা এবং কম তীব্রতার কারণে, সংক্রমণ প্রতিরোধ করা আর সম্ভব নয় এবং আর প্রয়োজন নেই।”ঘেব্রেইয়াসুস বলেন, “আরও সংক্রমণ মানে আরও বেশি মৃত্যু। আমরা কোনও দেশকে তথাকথিত লকডাউনে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি না। তবে আমরা সমস্ত দেশকে তাদের মানুষকে সবরকমভাবে সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি, একা ভ্যাকসিন নয়।”

আরও পড়ুন:  Russia Ukraine war : যুদ্ধের মাঝেই বিবাহ সারলেন রাশিয়া ইউক্রেনের যুগল

Featured article