28 C
Kolkata

Netaji : শঙ্খ বাজিয়ে দেশনায়ককে শ্রদ্ধা মুখ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদদাতা : নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী। দেশনায়কের জন্মমুহূর্ত ঠিক দুপুর সোয়া বারোটা। বাংলায় বেজে উঠল শঙ্খ, বাজল সাইরেন। রেড রোডে নেতাজির মূর্তির পাদদেশে সম্মান প্রদান করলেন পরিবারের সদস্যরা। গাইলেন গান। দেশনায়ককে ফুলের স্তবক দিয়ে সম্মান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অনুষ্ঠানে নিজে শাঁখ বাজালেন মুখ্যমন্ত্রী।

রবিবারের নেতাজি জন্মজয়ন্তি অনুষ্ঠানে রেড রোডে মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি রাজ্যের অন্যান্য মন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সুভাষচন্দ্র বসুর পরিবার। সুগত বসু, সুমন্ত্র বসুর পাশাপাশি হাজির ছিলেন চন্দ্র বসুও। এদিন নিজের ভাষণে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নেতাজি শুধু বাংলার নন, তিনি দেশের, তিনি গোটা বিশ্বের।’

অনুষ্ঠানে একগুচ্ছ কর্মসূচির ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান জানান, ‘নেতাজি যোজনা কমিশনের পরিকল্পনা করেছিলেন। মোদি সরকার ক্ষমতায় এসে যোজনা কমিশন তুলে দিয়ে নীতি আয়োগ তৈরি করেছে। সিদ্ধান্তকে লজ্জার বলে অভিহিত করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’।

মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, ‘বাংলায় যোজনা কমিশন গড়ে তোলা হবে’। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, ‘এনসিসি-র আদলে স্কুলে কলেজে জয় হিন্দ বাহিনী গড়ে তোলা হবে। নেতাজির নামে রাজ্যে আরও একটি বিশ্ববিদ্যালয় হবে’।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, ‘২৫ থেকে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত এবং ১৫ থেকে ২১ আগস্ট রাজ্যের সমস্ত স্বাধীনতা সংগ্রামীর মূর্তি ফুল এবং আলো দিয়ে সাজানো হবে। বাংলার যে সমস্ত এলাকা স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে ওতপ্রতোভাবে যুক্ত, সেখানে পর্যটকদের নিয়ে যাওয়া হবে। শোনানো হবে সেই ইতিহাস।

আরও পড়ুন:  Neha vs Falguni: নেহা ফাল্গুনী বিতর্ক সবটাই নাকি নাটক !
আরও পড়ুন:  Debolina Dutta: বিয়ের রাতে দেবলীনাকে ধোঁকা?

পাশাপাশি, তাম্রলিপ্ত সরকার গঠনের দিনও উদযাপিত হবে তমলুকে। প্রকাশিত হবে বিশেষ পুস্তিকা। যেখানে স্বাধীনতার সঙ্গে জড়িত নারীদের নিয়ে তৈরি হবে বিশেষ পুস্তিকা। তৎকালীন সংবাদমাধ্যমের ভূমিকা নিয়েও প্রকাশিত হবে বই।’ এদিনের অনুষ্ঠানে নাম না করে মোদি সরকারকে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের সব ঐতিহ্য নষ্ট করে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার।

একটা অমর জ্যোতি নিভিয়ে দিয়ে, নেতাজির মূর্তি বসিয়ে সুভাষকে শ্রদ্ধা জানানো যায় না। একটা স্ট্যাচু করে দিলেই নেতাজিকে ভালবাসা যায় না। একটা স্ট্যাচু করলেই দায়িত্ব শেষ হয় না। অনেক তো স্ট্যাচু করেছেন কোটি কোটি টাকা খরচ করে। দেশের ইতিহাসটাকে পড়েছেন?’ তিনি বলেন, ‘কেন এত দিন নেতাজির মূর্তি তৈরি হল না। এখন ওখানে মূর্তি বসিয়েছেন আমাদের চাপেই।’

মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘নেতাজি নিয়ে রাজ্যের যা যা করণীয় ছিল সেটা রাজ্য সরকার করেছে। কিন্তু কেন্দ্র নিজেদের প্রতিশ্রুতিপালনে ব্যর্থ’। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘নেতাজি রহস্য উদ্ঘাটিত করেনি সরকার। স্বাধীনতার পর ৭৫ বছর কেটে গেল, অথচ আজ অবধি একটা রহস্য উদ্ঘাটন করা গেল না? মূর্তি দিয়ে সবকিছু হয় না। অন্তর দিয়ে উপলব্ধি করতে হয়। নেতাজিকে আত্মস্থ করতে হয়।’ তাঁর প্রশ্ন, ‘কেন বাতিল হল নেতাজির ট্যাবলো? বাংলাকে কেন পদে পদে এত অবজ্ঞা?’ কেন্দ্রকে স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজ বাংলাকে এত অবজ্ঞা। সবটাই তো বাংলাকে ঘিরে। বাংলার ইতিহাস মুছে দেওয়ার ক্ষমতা কারও নেই।

আরও পড়ুন:  Suhana Khan: খোলা পিঠে প্রকৃতির মাঝে রেড ওয়াইন সুহানা

ভারতের ইতিহাস মুছে দেওয়ার ক্ষমতা কারও নেই।’ তিনি বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল নেতাজির জন্মদিবসে পদযাত্রা করার, কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে সেই পরিকল্পনা বাতিল করতে হয়।’ মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ করে বলেন, ‘যাঁরা ধর্মের নামে দেশ ভাগ করতে চাইছেন, তাঁদের বলব দয়া করে নেতাজি, রবীন্দ্রনাথ, বিবেকানন্দ পড়ে দেখুন। ভাগাভাগি করে, দেশভাগ করে জাতীয়তাবাদ দেখানো যায় না।’

আরও পড়ুন:  Virat-Surya : নিজের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট বিরাট, জানালেন জুটিতে শতরানের রহস্য

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি চাই, স্কুলের পাঠ্যপুস্তকে পড়ানো হোক দেশপ্রেমের ইতিহাস।’  এদিনের অনুষ্ঠান থেকে মুখ্যমন্ত্রী আবারও ঘোষণা, ‘নেতাজির ট্যাবলো কেন বাতিল করেছেন, আমাদের জানানো হয়নি। কিন্তু নেতাজির ট্যাবলো আমাদের রেড রোডে চলবে, বলে দিলাম।’

Featured article

%d bloggers like this: