28 C
Kolkata

Corruption: কলেজের অধ্যাপক নিয়োগেও দুর্নীতি, মামলা দায়ের হাইকোর্টে

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে যেন দুর্নীতির আর শেষ নেই। শুধু এসএসসি বা টেট নয়, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় স্তরেও দুর্নীতি। এবার কলেজে কলেজে অতিথি অধ্যাপক বা গেস্ট লেকচারার পদে নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ সামনে এল। কার্যত এই অভিযোগ নিয়ে ইতিমধ্যেই জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছে হাইকোর্টে। আগামীকাল অর্থাৎ শুক্রবার এই মামলার শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে। শুধু তাই নয়, এই মামলাতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও যুক্ত করার আবেদনও জানানো হয়েছে। যদিও, আদালত এই নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তের কথা এখনও জানায়নি।

মামলাকারীর তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে রাজ্যের বেশ কিছু কলেজে গেস্ট লেকচারার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। তাতে বলা হয় ১২ থেকে ১৪ হাজার গেস্ট লেকচারার নিয়োগ করা হবে। অথচ এখন দেখা যাচ্ছে সেই সব পদে যারা নিয়োগ পেয়েছেন তাঁদের অনেকেরই ওই পদে নিয়োগের যোগ্যতাই নেই। তাঁদের আরও অভিযোগ, কলেজে শিক্ষক হওয়ার যোগ্যতা নেই যাদের তাঁদের লেকচারার হিসেব নিয়োগ করা হল কীভাবে? নিয়োগ ক্ষেত্রে বড়ধরনের দুর্নীতি না হলে বা বেনিয়ম না হলে এই ঘটনা ঘটবে না।

আরও পড়ুন:  Siliguri: ডেঙ্গু রুখতে গেরুয়া শিবিরের মিছিল
আরও পড়ুন:  Tala Bridge : পুজোর আগেই ঢাকে কাঠি , উদ্বোধন হয়ে গেল টালা ব্রিজের

সূত্রের খবর, যে সব চাকরিপ্রার্থীরা এই মামলা দায়ের করেছেন তাঁরা কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিয়েছিলেন। তাঁদের দাবি ছিল, এই দুর্নীতি বা বেনিয়মের ঘটনা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তদন্তের নির্দেশ দিন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর তরফে কোনও সাড়া না পাওয়ায় তাঁরা বাধ্য হয়েছেন আদালতের দ্বারস্থ হতে। তাঁদের দাবি, পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠের ফ্ল্যাট থেকে যে বিপুল পরিমাণ খামবন্দি টাকা উদ্ধার হয়েছে, তাতে উচ্চশিক্ষা দফতরের নাম জ্বলজ্বল করছে। অর্থাত্‍ উচ্চশিক্ষা দফতর ও কলেজ সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে সংঘটিত দুর্নীতির টাকা, উদ্ধারকৃত অর্থের সঙ্গে রয়েছে এটা অনুমান করা খুবই সঙ্গত। তাই আমরা চাইছি পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও এই মামলার শরিক করা হোক।

Featured article

%d bloggers like this: