28 C
Kolkata

Amar Jawan Jyoti : সাধারণতন্ত্র দিবসের আগেই নিভছে শিখা , বিরোধীরা বলছেন রাজধানীর ‘মোদিকরণ’’

নিজস্ব সংবাদদাতা : ৫০ বছর পরে নিভতে চলেছে নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া গেটের অমর জওয়ান জ্যোতির অনির্বাণ শিখা। শুক্রবারই সেই অগ্নিশিখা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে নবনির্মীত ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’-এ।অমর জওয়ান জ্যোতি ভারতীয় সৈন্যদের জন্য একটি স্মারক হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ১৯৭১ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধে নিহত সৈনিকদের স্মৃতি ও আত্মত্যাগের স্বরূপ ও সম্মান হিসেবেই জ্বলে আসছে এই অগ্নিশিখা। ভারত-পাক যুদ্ধে ভারতের জয় এবং তার ফল স্বরূপ বাংলাদেশের স্বাধীন জন্মের সাক্ষ্য বহন করছে এই অমর জওয়ান জ্যোতি। ১৯৭২ সালের ২৬ জানুয়ারি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধি অমর জওয়ান জ্যোতির উদ্বোধন করেছিলেন।

পাথরের স্তম্ভে উল্টো করে রাখা ৭.৬২ স্বয়ংক্রিয় রাইফেল এবং তার উপর একটি সেনা শিরস্ত্রাণের স্মারক রয়েছে এখানে। আর তার সামনে সর্বক্ষণ জ্বলতে থাকা আগুনের শিখা। ঠিকানা বদলে এ বার তা চলে যাবে প্রায় আধ কিলোমিটার দূরত্বের ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’-এ। ঘটনাচক্রে, এ বারও উত্তরপ্রদেশ-সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের আগেই শহিদ জওয়ানদের স্মৃতিতে প্রজ্জ্বলিত শিখা স্থানান্তর করা হচ্ছে। ‘অমর জওয়ান জ্যোতি’র অগ্নিশিখাকে সরিয়ে আনা নিয়ে কেন্দ্রের তরফে যুক্তি দেওয়া হয় যে, ইন্ডিয়া গেটে যে শহিদ জওয়ানদের নাম খোদাই করা রয়েছে, জাতীয় যুদ্ধ স্মারকেও সেই সমস্ত নামের উল্লেখ রয়েছে।

আরও পড়ুন:  New Delhi Boy Raped: চাঞ্চল্যকর! এদেশে সুরক্ষিত নয় মহিলা-পুরুষ
আরও পড়ুন:  Lumpy virus: লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ‘লাম্পি স্কিন’

এর পাশাপাশি, ১৯৪৭-’৪৮ সালে পাকিস্তানের সঙ্গে য়ুদ্ধে এবং লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনের সঙ্গে সংঘর্ষে শহিদ জওয়ানদের নামও খোদাই রয়েছে সেখানে। সন্ত্রাসদমন অভিযানে শহিদ বাহিনীর নামও রয়েছে। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ৪০ একর জমির উপর ১৭০ কোটি টাকা খরচে নির্মিত জাতীয় যুদ্ধ স্মারকের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি । সেখানে ১৫.৫ মিটার দীর্ঘ স্মৃতিস্তম্ভের উপর ‘অমর চক্র’, ‘বারতা চক্র’, ‘ত্যাগ চক্র’, ‘রক্ষা চক্র’ বসানো হয়। গ্রানাইটের উপর স্বর্ণাক্ষরে খোদাই করা হয় ২৫ হাজার ৯৪২ শহিদ জওয়ানের নাম। মোদির হাতে উদ্বোধনের পর থেকে সেনার যাবতীয় অনুষ্ঠানও ইন্ডিয়া গেট থেকে সরিয়ে জাতীয় যুদ্ধ স্মারকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় একে একে।

খরচ বাঁচানোর দোহাই দিয়ে ‘অমর জওয়ান জ্যোতি’ অগ্নিশিখা নেভানোর সিদ্ধান্তকে রাজধানীর ‘মোদিকরণ’-এরই অংশ হিসেবে দেখছে রাজনৈতিক মহল। কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি টুইটারে লেখেন, ‘অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে বীর জওয়ানদের স্মৃতিতে প্রজ্জ্বলিত অমর জওয়া জ্যোতির অগ্নিশিখা আজ নিভিয়ে দেওয়া হবে। কিছু মানুষ দেশপ্রেম এব‌ং আত্মবলিদানের মাহাত্ম্য বোঝেন না। কোনও সমস্যা নেই। অমর সেনার স্মৃতিতে ফের অমর জওয়ান জ্যোতি প্রজ্জ্বলিত করব আমরা।’

আরও পড়ুন:  Hydrogen-Powered Trains: শীঘ্রই ভারতের মাটিতে চলবে হাইড্রোজেন গ্যাস চালিত ট্রেন
আরও পড়ুন:  New Delhi Boy Raped: চাঞ্চল্যকর! এদেশে সুরক্ষিত নয় মহিলা-পুরুষ

Related posts:

Featured article

%d bloggers like this: