22 C
Kolkata

Assam: বাগদত্তাকে গ্রেপ্তার করে হেফাজতে অসমের সাব-ইনস্পেক্ট্রর

গুয়াহাটি: রিয়েল লাইফের লেডি সিংঘম কিছুদিন আগেই চর্চায় ছিলেন। আর্থিক প্রতারণার অভিযোগে নিজের বাগদত্তাকে গ্রেপ্তার করেছিলেন অসম পুলিসের নগাঁও জেলার সাব-ইনস্পেক্টর জুনমণি রাভা। গত দু’দিন ধরে তাঁকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল। মাজুলি জেলার একটি আদালত তাঁকে ১৪ দিনের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। জুনমণিকে মাজুলি জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে। দুই ঠিকাদারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। তাঁদের দাবি, বাগদত্তার রানা পোগাগের সঙ্গে আর্থিক চুক্তি করেছিলেন জুনমণিও। তাঁদের সঙ্গে রানার যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিলেন সাব-ইনস্পেক্টর নিজেই। ঠিকাদারদের অভিযোগ রানা তাঁদের টাকা নিয়ে জালিয়াতি করেন এবং এই ঘটনায় জুনমণিও সমান ভাবে যুক্ত ছিলেন। এর পরই পুলিশ জুনমণিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করে।

আরও পড়ুন:  রাহুল গান্ধীকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি, CCTV ফুটেজ দেখে গ্রেপ্তার অভিযুক্ত

ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কিছুদিন আগেই প্রতারণার অভিযোগ ওঠে কয়েকজনের বিরুদ্ধে। ৫ মে রানাকে গ্রেপ্তার করেন জুনমণি। মাজুলিতে থাকার সময়ই জুনমণির সঙ্গে আলাপ ও প্রেম হয়েছিল তার। রানা নিজেকে ওএনজিসির জনসংযোগ বিভাগের কর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। গত বছর ৮ অক্টোবরে ধুমধাম করে তাঁদের বাগদান পর্ব সম্পন্ন হয়। এর পর নগাঁওতে বদলি হয়ে রানার কুকীর্তির কথা জানতে পারেন বলে দাবি জুনমণির। অভিযুক্তর ব্যাগ থেকে ওএনজিসির ভুয়ো সিল ও নথিপত্র পেয়ে তাঁকে গ্রেফতার করেন জুনমণি। রানা বর্তমানে মাজুলি জেলে বন্দি রয়েছেন। এদিকে একই অভিযোগ উঠেছে জুনমণির বিরুদ্ধেও।

Featured article

%d bloggers like this: