18 C
Kolkata

কংগ্রেস ছাড়লেন বর্ষীয়ান নেতা Gulam Nabi Azad

নিজস্ব প্রতিবেদন: আবারও ধাক্কা কংগ্রেসে। শেষ পর্যন্ত দল ছাড়লেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ। শুক্রবার প্রাথমিক সদস্যপদ সহ দলের সমস্ত পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যে, দলের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর কাছে পাঁচ পৃষ্ঠার একটি চিঠি পাঠিয়ে দল ছাড়ার কথা জানিয়েছেন আজাদ। সেখানে তিনি দলের সঙ্গে তাঁর দীর্ঘদিনের সম্পর্ক, প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতার কথাও তুলে ধরেছেন প্রবীণ এই নেতা।

চিঠিতে গুলাম নবি লিখেছেন, “অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে এবং অত্যন্ত প্ররোচিত হৃদয়ে আমি ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সঙ্গে আমার অর্ধ শতাব্দীর পুরনো সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” তিনি আরও লেখেন, “গোটা সাংগঠনিক নির্বাচনী প্রক্রিয়াই একটা প্রহসন। দেশের কোথাও সংগঠনের কোনও পর্যায়ের নির্বাচনই হয়নি।” নাম না করে কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গাঁধীকে নিশানা করে বর্ষীয়ান নেতা লিখেছেন, এই সব ঘটেছে, তার কারণ গত আট বছরে যিনি নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, তিনি ‘অপরিণত’। যেভাবে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের পাশ করানো একটি অর্ডিন্যান্স প্রকাশ্যে ছিঁড়ে ফেলেছিলেন, তাতেই প্রচারের হাতিয়ার পেয়েছিল বিরোধীরা।

আরও পড়ুন:  Gerasim Lebedev: 'থেটারে লোক শিখ্যে হয়'

আজাদের এই বিস্ফোরক চিঠি আগামী দিনে কংগ্রেস তথা জাতীয় রাজনীতিতে চর্চার বিষয় হতে চলেছে, তাতে সংশয় নেই। আসলে বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেতা দীর্ঘদিন ধরেই কোণঠাসা ছিলেন। অনেক দিন ধরেই ইস্তফা দেওয়ার প্রস্তুতিও নিচ্ছিলেন তিনি। দলের অন্দরে থেকে যে অভিযোগগুলি প্রকাশ করতে  পারছিলেন না, ইস্তফা দেওয়ার পর সেগুলিই বলে দিলেন। এর আগে জম্মু-কাশ্মীরের ভোট প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান পদ নিতে রাজি হননি আজাদ। নিযুক্ত করার মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যেই চিঠি পাঠিয়ে পদ নিতে না পরার কথা জানিয়ে দেন সোনিয়া গান্ধীকে। সেই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরের পলিটিক্যাল অ্যাফেয়ার্স কমিটি থেকেও সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:  Howrah Accident: লরির ধাক্কায় মৃত সিভিক ভলেন্টিয়ার

Featured article

%d bloggers like this: