22 C
Kolkata

কংগ্রেসের ৪ সাংসদ বাদল অধিবেশনে থাকতে পারবেন না কেন?

নিজস্ব প্রতিবেদন: কিছুদিন আগেই নতুন কিছু নিয়মাবলী পেশ করে সংসদ পরিষদীয় দল। অসাংবিধানিক বলে গণ্য করা হয় ৬০টি শব্দকে। তার সঙ্গে আরও কিছু নিয়ম আনা হয়। তার মধ্যে একটি হল সংসদ ভবন চত্বরে কোনও প্রকার বিক্ষোভ সমাবেশ করা যাবে না। তা করা হলে শাস্তি অনিবার্য।

এদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধীদের ক্ষোভ বেড়ে চলেছে। নিত্যদিন জ্বালানির দাম বেড়ে চলেছে। রান্নার গ্যাসের দাম প্রায় ১১০০ ছুঁই ছুঁই। এহেন পরিস্থিতিতে বিরোধীরা যে আন্দোলন করবে না তা কি করে হয়? কংগ্রেসের ৪ সাংসদ মানিকম ঠাকুর, যথিমানি, রম্যা হরিদাস এবং টিএন প্রথাপন হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ দেখতে থাকেন। তবে তা সংসদ ভবনে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে।

আরও পড়ুন:  Shraddha Walker Murder Case: শ্রদ্ধা ওয়াকার খুনে পুলিশকে দায়ী করলেন উপমুখ্যমন্ত্রী

এদিন অধিবেশন শুরু হতেই মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে প্ল্যাকার্ড নিয়ে সরব হন কংগ্রেস সাংসদরা।তাঁদের সতর্ক করে, স্পিকার ওম বিড়লা বলেন, “আলোচনার জন্য আমি তৈরি। আমি চাই আলোচনা হোক। দুপুর ৩টে থেকে আলোচনা হবে। এটা আমার দুর্বলতা ভাববেন না। কিন্তু প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে চাইলে সংসদের বাইরে যান।”

স্পিকারের নির্দেশের পরই চার সাংসদ গান্ধীমূর্তির পাদদেশে গিয়ে বিক্ষোভ দেখান। সাসপেনশন সম্পর্কে কংগ্রেসের তরফে বলা হয়েছে, “মানুষের কথা বলছিলেন আমাদের সাংসদরা। তাঁদের কণ্ঠরোধ করল সরকার।”

Featured article

%d bloggers like this: