18 C
Kolkata

‘দেশের সবাইকে করোনা টিকা নয়’, জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব

নিজস্ব সংবাদদাতা : দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি ও ভ্যাকসিন বণ্টন কর্মসূচি নিয়ে আলোচনার জন্য সর্বদল বৈঠক ডেকেছে কেন্দ্রীয় সরকার। আগামী শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর সকালে হবে এই ভার্চুয়াল বৈঠক, যেখানে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে পৌরোহিত্য করবেন প্রধানমন্ত্রী নিজেই। কিন্তু তার আগে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ যা বললেন, তাতে সর্বদল বৈঠক উত্তপ্ত হয়ে ওঠার সম্ভাবনা বেশি। কী বলেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব? তাঁর কথায়, ‘পুরো দেশকে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে, এমন কথা কেন্দ্রীয় সরকার কোনও দিন বলেনি!’ তিনি আরও বলেন এজাতীয় বিজ্ঞান ভিত্তিক বিষয়ে চর্চা করার আগে সম্পূর্ণ তথ্য হাতে রেখে তবেই আলোচনা করার জরুরি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণের বক্তব্যের সপেক্ষে ইন্ডিয়ার কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চের ডিজি বলরাম ভার্গব বলেন, টিকা দেওয়ার মূল উদ্দেশ্যই হল করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শৃঙ্খলটিকে ভেঙে দেওয়া। অল্প সংখ্যক মানুষকে যদি করোনা টিকা দিয়ে সেই শৃঙ্খল ভাঙা যায় তাহলে দেশের সমস্ত মানুষকে টিকা করণের প্রয়োজন নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিবের বক্তব্য প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পরিপন্থী। কারণ দিন কয়েক আগেই প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, একটি টিকা হাতে এলেই পুরো দেশের মানুষকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তা সরবরাহ করা হবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী হর্ষ বর্ধনও একাধিকবার বলেছেন টিকা বন্টনের রোডম্যাপ তৈরি হচ্ছে। অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে টিকাকরণের কথাও তিনি বলেছেন। গত শনিবারই মোদি জাইডাস ক্যাডিলা হেল্থকেয়ার, সিরাম ইনস্টিটিউট ও ভারত বায়োটেক – তিন শহরের এই তিনটি সংস্থায় গিয়ে ভ্যাকসিনের অগ্রগতির খোঁজ নেন প্রধানমন্ত্রী। যদিও মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে তাঁর যে ভার্চুয়াল বৈঠক হয়, তাতে তিনি নির্দিষ্ট করে বলতে পারেননি, টিকা কবে আসবে। তবে প্রস্তুতিতে কোনও ফাঁক রাখছে না সরকার, সেই বিষয়টি উল্লেখ করেন তিনি।

আরও পড়ুন:  Lifestyle : আপনার ব্যবহৃত কাঁচা হলুদ সত্যি কি আসল ?

Featured article

%d bloggers like this: