29 C
Kolkata

গতি থমকে গেল ‘উড়ন্ত শিখের’

নিজস্ব সংবাদদাতা: স্বাধীনতার পর ভারতের প্রথম স্টার ক্রীড়াবিদ ছিলেন মিলখা সিং। কিছুদিন আগেই করোনা আক্রান্ত হন তিনি। সুস্থই ছিলেন। করোনা সারলে টিকা নেবেন বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। অবস্থার অবনতি হতে ভর্তি হন হাসপাতালে। সুস্থ হয়ে ফিরেও আসেন। বৃহস্পতিবার করোনা নেগেটিভও আসে তাঁর।

পাঁচ দিন আগে তাঁর স্ত্রী,প্রাক্তন ভলিবল দলের ক্যাপ্টেন নির্মল সাইনি মিলখা সিং করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন হাসপাতালে। এরপর ফের শুক্রবার অসুস্থ হন মিলখা। চিকিৎসকদের দীর্ঘ প্রচেষ্টাতেও আর বাঁচানো গেল না তাঁকে।

১৯৫৮তে কমনওয়েলথে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন তিনি। ১৯৬০ সালে রোম অলিম্পিকে ৪০০মিটার দৌড়ে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে চতুর্থ হন তিনি। ১৯৫৯ সালে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হন মিলখা। এশিয়ান গেমসে চারটি সোনা আছে তাঁর। ১৯৬০এর ভারত-পাকিস্তান ক্রীড়ার লড়াই তাঁর জীবনে নতুন মোড় আনে। ঊনিশের দশকে পাকিস্তানি দৌড়বিদ আব্দুল খালিক ছিলেন ফাস্টেস্ট ম্যান। তাঁকেও ২০০ মিটারের দৌড়ে লাহোরে হারিয়েছিলেন মিলখা। এরপরই পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জেনারেল আয়ুব খান তাঁকে “উড়ন্ত শিখ”(Flying Sikh) নামে নামাঙ্কিত করেন।


ভারতীয় মহিলা ভলিবল দলের অধিনায়ক নির্মল সাইনিকে বিয়ে করেন মিলখা ১৯৬৩তে। তাঁদের প্রথম দেখা হয় ১৯৫৬ সালে শ্রীলঙ্কাতে। তিন মেয়ে ও এক ছেলেকে রেখে গেলেন তিনি। ২০১৩ সালে প্রকাশিত হয় তাঁর আত্মপ্রকাশনী “দ্য রেস অফ্ মাই লাইফ”। এরপরই তৈরি হয় তাঁর আত্মজীবনী নিয়ে ফারহান আখতার অভিনীত ছবি “ভাগ মিলখা ভাগ”।

দৌড়বিদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এরই সঙ্গে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, পশ্চিমবঙ্গ সাংস্কৃতিক সেলের দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচালক রাজ চক্রবর্তীও ট্যুইট করে শোকবার্তা প্রকাশ করেন।

আরও পড়ুন:  AIFF : বর্ষসেরা ফুটবলার সুনীল, মহিলা সেরা ফুটবলার মণীষা

Featured article