28 C
Kolkata

দিল্লি পুলিশের হাতে আটক CID-র চার আধিকারিক

নিজস্ব প্রতিবেদন: এসএসসি দুর্নীতি নিয়ে তদন্তের মাঝেই কংগ্রেস বিধায়কদের থেকে বিপুল টাকা উদ্ধার হয়। যা নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা রাজ্যে। এই ঘটনায় বড় কোন ষড়যন্ত্র থাকতে পারে, এই সন্দেহে তদন্ত শুরু করে রাজ্য পুলিশ এবং সিআইডি-র যৌথ দিল। সেই তদন্তে গিয়েই দিল্লি পুলিশের হাতে আটক সিআইডি-র চার আধিকারিক। এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে যেতেই দিল্লি পুলিশ গিয়ে তাঁদের বাধা দেয় বলে অভিযোগ। আদালতের তরফে তল্লাশি পরোয়ানা থাকা সত্ত্বেও কেন তাঁদের আটকে দেওয়া হয়েছে, সেকারণে বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপারউতোর।

জানা গিয়েছে, ঝাড়খণ্ডের বিধায়কদের গাড়ি থেকে টাকা উদ্ধারের তদন্তে গিয়ে আটক সিআইডি-র আধিকারিকরা। তাঁদের মধ্যে সিআইডি-র ১ জন ইন্সপেক্টর, ২ জন এসআই এবং ১ জন এএসআই রয়েছেন। সিআইডির চার আধিকারিককে সাউথ ক্যাম্পাস পুলিশ স্টেশনে আটক করে বসিয়ে রাখা হয়েছে। এমনকী তাঁদের বলা হয়, তল্লাশি শেষে যে লিখিত কাগজ জমা দিতে হয়, তা যেন তাঁরা জমা করে দেন। কিন্তু তল্লাশি না করেই এমন কোনও তথ্য জমা করতে রাজি হননি ওই আধিকারিকরা। ইতিমধ্যে, পরিস্থিতির খবর পেয়ে বাংলা থেকে উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকরা দিল্লি রওনা দিয়েছেন বলে খবর। টিমে থাকবেন একজন এডিজি পদমর্যাদার অফিসার। থাকবেন ২ জন আইজি পদমর্যাদার আধিকারিকও।

আরও পড়ুন:  Earthquake: ফের কেঁপে উঠল লাদাখের মাটি, আতঙ্কিত বাসিন্দারা
আরও পড়ুন:  পড়ুয়াদের পাশে বসেই নিয়মিত ক্লাস করছে হনুমান!

গত শনিবার হাওড়ার পাঁচলার কাছে ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে ঝাড়খণ্ডের ৩ কংগ্রেস বিধায়কের গাড়ি থেকে ৪৯ লক্ষ টাকা উদ্ধারকে ঘিরে ছড়ায় চাঞ্চল্য। তাঁদের গ্রেপ্তারির পর জেরা করছে সিআইডি। জেরায় জানা যায়, পড়শি রাজ্য ঝাড়খণ্ডের জেএমএম-কংগ্রেস সরকার ফেলার জন্য বিজেপি প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা দিয়েছিল কংগ্রেসের তিন বিধায়ককে। এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত আরও তিনজনের সন্ধান পায় এ রাজ্যের সিআইডি টিম। আর মধ্যস্থতাকারী হিসেবে উঠে আসে সিদ্ধার্থ মজুমদারের নাম। তাঁর দিল্লির বাড়িতে তল্লাশি চালানোর সময় সিআইডি-র আধিকারিকদের বাধা দেয় দিল্লি পুলিশ।

Featured article

%d bloggers like this: