28 C
Kolkata

টাকার টোপ বাড়াচ্ছে বিজেপি, অভিযোগ গেহলটের

নিজস্ব সংবাদদাতা :: রাজস্থানে ডামাডোল এখনও চলছে। শচীন পাইলট ও তাঁর অনুগামীরা বিদ্রোহ ঘোষণার পরেই কংগ্রেসের প্রায় ১০০ বিধায়ককে জয়পুরের কাছে একটি রিসর্টে রেখেছিলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। সেই বিধায়কদের ফের অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে চান তিনি। গেহলটের অভিযোগ, টাকার টোপ বাড়াচ্ছে বিজেপি। তাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। গেহলটের অভিযোগ, ‘অধিবেশন শুরুর দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ঘোড়া কেনাবেচার দর বেড়ে গিয়েছে। প্রাথমিক দর ছিল প্রথম কিস্তিতে ১০ কোটি আর দ্বিতীয় কিস্তিতে ১৫ কোটি। এখন সেই দর লাগামছাড়া ভাবে বেড়ে গিয়েছে।’ অশোক গেহলট শুক্রবার থেকেই বিধানসভার অধিবেশন শুরু করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু রাজ্যপালের ২১ দিনের নোটিসের পরামর্শে রাজি হন তিনি। তাঁর জবাব, ২১ দিন বা ৩১ দিন পরেই হোক না কেন, নিজের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তিনি। বর্তমান পরিস্থিতিতে অবশ্য সরু সুতোর উপর ঝুলছে গেহলটের সংখ্যাগরিষ্ঠতা। সূত্রের খবর, অশোক গেহলটের পক্ষে ১০২ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে, যা সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে মাত্র একটা বেশি। অন্যদিকে পাইলট শিবিরে তাদের পক্ষে ৩০ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে বলে দাবি করলেও এখনও পর্যন্ত ১৯ জন বিধায়কের বেশি কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ দিকে অশোক গেহলটের ওপরে আরও একটি চাপ রয়েছে। বিজেপি আর বিএসপির আবেদনের ভিত্তিতে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিএসপির প্রাক্তন ছ’জন বিধায়ককে নোটিশ দিয়েছে রাজস্থান হাইকোর্ট।এর ফলে সমস্যা বাড়ছে গেহলট শিবিরের সামনে। তার মাঝেই বিধায়কদের অন্য জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।তবে আরেক সূত্রের খবর, গেহলট বৃহস্পতিবার ফতোয়া জারি করেছেন, অধিবেশনের আগেও অবধি ক্যাম্প ছেড়ে যেতে পারবেন না বিধায়করা। তাঁর এই সিদ্ধান্তে খুব একটা খুশি নন বিধায়করা। তাই তাঁদের মনোরঞ্জন করতে স্থান বদল করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন:  Bangladesh Durga Idol Vandalized: আগমনীর আগেই দুর্গা মন্দির ভাঙচুর
আরও পড়ুন:  Election Commission: ভোটদানের ক্ষেত্রে বদল আনতে কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রককে চিঠি নির্বাচন কমিশনের

Related posts:

Featured article

%d bloggers like this: