21 C
Kolkata

সাভারকারকে কি স্বাধীনতা সংগ্রামী বলে মেনে নিল কংগ্রেস?

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ খাতায় কলমে সংসদ ভবনে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় কংগ্রেস এখন নিজেদের অস্তিত্ব সঙ্কটে রয়েছে। অনেক প্রবীন ও নবীন নেতাদের মধ্য মতানৈক্য সামনে চলে আসছে। এমনকি দলের সভাপতির যে নির্বাচন হবার কথা সেখানেও বেশ কিছু নেতার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ঔৎসুক্য চোখে পড়ার মত। এমত অবস্থায় রাহুল গান্ধীর ডাকে চলছে ভারত জোড়ো যাত্রা।

বর্তমানে ভারত জোড়ো যাত্রা সঙ্ক্রান্তে কেরলে রয়েছেন রাহুল গান্ধী। তাঁকে স্বাগত জানিয়ে রাস্তার দু’ধার কংগ্রেসের তেরঙ্গা দিয়ে সাজিয়ে তুলছে স্থানীয় নেতৃত্ব। কোচির আলুভা অঞ্চলও সাজানো হচ্ছে একই উদ্দেশ্যে। রাস্তার ধারে লাগানো হয়ে বিশাল হর্ডিং। ছবি থাকে বিখ্যাত স্বাধীনতা সংগ্রামী মনিষীদের।রাজা রামমোহন রায়, দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ, চন্দ্রশেখর আজাদদের  ছবি জ্বলজ্বল করছে সেই হোর্ডিং-এ। তাঁদের পাশেই রয়েছে ভীর সাভারকারের ছবিও। তাহলে কংগ্রেস কি সাভারকারকেও স্বাধীনতা সংগ্রামী বলে নিল?  

আরও পড়ুন:  'ওষুধের আধার কার্ড'! জালিয়াতি ঠেকাতে নয়া নিয়ম কেন্দ্রের

এতদিন ধরে কংগ্রেস যে ব্যক্তিকে মহাত্মা গান্ধীর হত্যায় অভিযুক্ত বলে আখ্যা দিত, সেই সাভারকার এখন কংগ্রেসের হোর্ডিং-এ। এটা কি করে সম্ভব? কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতা রাহুল একাধিক বার সাভারকরেরন প্রসঙ্গ তুলে সঙ্ঘ পরিবারের হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির সমালোচনা করেছেন। স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহন করার পর গ্রেপ্তার হয়েছেন সাভারকার। তবে ব্রিটিশ সরকারের কাছে পর পর দু’বার মুচেলেকা দিয়ে তিনি ক্ষমাপ্রার্থনা করেছেন। এ প্রসঙ্গেও একাধিক বার বিজেপিকে কটাক্ষ করেছে কংগ্রেস। আর সেই কংগ্রেসের কর্মসূচিতেই সাভারকরের ছবি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

এই খবর জানাজানি হতেই, টনক নড়ে নেতৃত্বের। তারা পুর দায় চাপায় ছাপার দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিন্টারের উপর। তাদের বলেছে, যে প্রিন্টার কে বলা হয়েছিল স্বাধিনতা সংগ্রামী ও মনিষীদের ছবি ছাপানোর জন্য। তারাই সাভারকারের ছবি ছেপে দেয়ে।এরপর মহাত্মা গান্ধীর ছবি দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয় সেই বিতর্কিত ছবি। তবে এই ভুল কর্মকর্তাদের চোখে পড়েনি কেন সেটাই প্রশ্ন।

আরও পড়ুন:  Gujarat Election: শুরু হল প্রথম দফার ভোটগ্রহণ! ৮৯ টি আসনে ৭৮৮ জন প্রার্থীর ভাগ্যপরীক্ষা

ঘটনাটি জনসমক্ষে আসা মাত্রই তাকে  হাতিয়ার করে নেয় বিজেপি। আইটি সেল প্রধান অমিত মালব্য  টুইটে করেছেন, ‘দেরীতে হলেও অবশেষে বোধোদয় হল রাহুল গান্ধীর।’ অন্যতম মুখপাত্র শেহনাজ পুণেওয়ালার বক্তব্য, ‘রাহুলজি, যত চেষ্টাই করুন, সত্যি আর ইতিহাস সামনে চলেই আসে। সাভারকর বীর ছিলেন। যাঁরা তাঁকে চেপে রাখে, তারা ভীরু।’ এদিকে, কংগ্রেসের ভারত জোড়ো যাত্রাকে এদিন দুর্নীতি জোড়ো যাত্রা বলেও কটাক্ষ করেছে বিজেপি।

Featured article

%d bloggers like this: