21 C
Kolkata

Flipkart-এ অর্ডার ছিল ল্যাপটপের, কিন্তু বাড়িতে যা এল…..

নিজস্ব প্রতিবেদন: অনলাইন প্ল্যাটফর্মের দৌলতে এখন বাড়িতে বসেই গ্রাহকরা যে কোনও প্রোডাক্ট কিনে নিতে পারেন। এদিকে, আবার পুজোর মরশুমে অনলাইন সাইট গুলিতে চলছে দেদার সেল। বিশেষ করে ফ্লিপকার্ট ও অ্যামাজন, নায়িকা সহ একাধিক ই-কমার্স সাইটে সেলের জন্য অপেক্ষা করে বসে থাকেন ক্রেতারা। ফ্লিপকার্টের বিগ বিলিয়ন ডে-র সেল মানে তো আর কথাই নেই। সেখানে কমে পাওয়া যায় মোবাসইল থেকেে ল্যাপটপ সব কিছুই। সেই কম দামে জিনিস কিনতে গিয়েই এবার প্রতারণার ফাঁদে পড়লেন এক ছাত্র।

জনপ্রিয় অ্যাপ ফ্লিপকার্টের বিগ বিলিয়ন ডে-র সেল শুরু হতেই একটি ল্যাপটপ অর্ডার দেন আহমেদাবাদের আইআইএম-এর এক ছাত্র যশস্বী শর্মা! সব টাকা পেমেন্টও করে দেন। সময় মতো ডেলিভারি হয়ে যায় ল্যাপটপ। ওই ছাত্র বাড়িতে না থাকায় তার বাবা প্রোডাক্টটি রিসিভ করেন। ফ্লিপকার্টের একটি নিয়ম আছে, ডেলিভারি বয়ের সামনেই বক্স খুলে দেখে নিতে হবে, যে আপনি যা অর্ডার করেছেন সেটাই এসেছে কিনা। এবং তারপর ডেলিভারি বয়ের পাঠানো ওটিপি অ্যাকসেপ্ট করবেন। যদি প্রোডাক্ট ভুল থাকে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে ফেরত নেওয়ার রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে অ্যাকাউন্টে টাকা ফেরত চলে আসবে। কিন্তু, যশস্বীর বাবা সেটা করেননি।

আরও পড়ুন:  Arvind Kejriwal: 'Vote For Better Future' গুজরাত নির্বাচনে আর্জি কেজরির

এর পর যশস্বী নামে ওই ছাত্র বাড়ি ফিরে প্রোডাক্ট খুলতেই দেখা যায়, ল্যাপটপের বদলে সেখানে রয়েছে ডিটারজেন্ট সাবান। রীতিমত চক্ষু চরকগাছ হয়ে হাবার জোগাড়। হাজার হাজার টাকার ল্যাপটপের বদলে এল কিনা কাপড় কাচার সাবান। মাথায় হাত পড়ে যায় ওই ছাত্রের। এরপর, গোটা বিষয়টা জানিয়ে ফ্লিপকার্টে মেইল করে সে। ছবি পোস্ট করে। এবং লিঙ্কডইনেও গোটা বিষয়টা পোস্ট করে। তারপরেই নড়েচড়ে বসে ফ্লিপকার্ট কতৃপক্ষ।

ফ্লিপকার্টের তরফে জানানো হয়, ‘যদিও তাঁদের ওপেন বক্স পলিসি এ ক্ষেত্রে মানেননি ক্রেতা। তাহলে সমস্যা সমাধান তখনই হয়ে যেত। তবে বিশেষকরে এই কেসটি আলাদা করে খতিয়ে দেখছে তারা! সব ঠিক থাকলে, তিন থেকে চার দিনের মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়া হবে ওই ছাত্রকে। এবং যেখান থেকে এই প্রোডাক্ট অর্ডার করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে ফ্লিপকার্ট!’

আরও পড়ুন:  BJP: পাখির চোখ লোকসভা নির্বাচন! আগামী সপ্তাহে জরুরি বৈঠক বিজেপির

Featured article

%d bloggers like this: