28 C
Kolkata

দেশ ছেড়ে ইমরান খানের দেশে আফগান মহিলা ফুটবলাররা

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ তালিবানদের অত্যাচারের ভয়ে সাধারণ মানুষের মত আতঙ্কিত হয়ে এবার দেশ ছাড়লেন আফগান মহিলা ফুবল দলের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়। তবে শুধু খেলোয়াড়রাই নন, তাঁদের সঙ্গে দেশ ছাড়লেন ওই খেলোয়াড়দের পরিবার এবং কোচরাও।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ আগস্ট দ্বিতীয়বারের জন্য আফগানিস্থানের দখল নেয় তালিবানরা। তার পরেই সাধারণ মানুষকে নিরাপত্তার আশ্বাস দিলেও কাজে তা হচ্ছে না বলেই আতঙ্কিত হয়ে দেশছাড়ছেন তাঁরা। এবার সাধারণ মানুষের পাশাপাশি দেশ ছেড়ে পাকিস্তান পৌঁছলেন আফগান মহিলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়, কোচ ও তাঁদের পরিবারের সদস্যরা। প্রথমে ইমরান খানের দেশে আশ্রয় নিলেও এরপর রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য তাঁরা আবেদন করবেন আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ায়।

ইতিমধ্যে সীমান্তবর্তী শহর তোরখাম সীমানা পার করে ৮১ জন আফগান খেলোয়াড় পাকিস্তানে পৌঁছেছেন বলে সূত্রের খবর । এঁদের মধ্যে রয়েছেন আফগান মহিলা যুব দলের ফুটবলাররা। গত বৃহস্পতিবার আরও ৩৪ জনের যাওয়ার কথা পাকিস্তানে। আফগান মহিলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়দের পাকিস্তানে আশ্রয়ের প্রসঙ্গে সেই দেশের ফুটবল ফেডারেশনের কর্তা উমার জিয়া বলেন, আফগান মহিলা খেলোয়াড়, কোচ ও তাঁদের পরিবারকে ৩০ দিনের জন্য আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। এরপরই ওঁরা অন্য দেশে চলে যাবেন। আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রিয়ায় তাঁদের পাঠানোর চেষ্টা ইতিমধ্যেই শুরু করছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা।

আরও পড়ুন:  রাজা তৃতীয় চার্লসের নৈশভোজের আমন্ত্রণে 'না' প্রিন্স হ্যারির
আরও পড়ুন:  ছাড়িয়ে যেতে পারে যুদ্ধ পরিস্থিতি সামাল দেবার অনুদান

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সাল থেকে শুরু করে ২০০১ সাল অবধি হিন্দুরকুশ পর্বতের কোলে অবস্থিত এই ছোট্ট দেশটির মসনদ দখল করেছিল তালিবানরা। সেই সময় মেয়েদের স্কুলে যাওয়াও বন্ধ ছিল। ছিল না কাজ করারও অনুমতিও। মহিলাদের কোনও রকম খেলার সঙ্গেও যুক্ত থাকার অনুমতি দেওয়া হত না। এই প্রসঙ্গে গত ৮ সেপ্টেম্বর এক সাক্ষাত্‍কারে তালিবানদের এক শীর্ষ নেতা বলেন, ইসলাম ধর্মে এমন কিছু খেলার নিয়ম নেই, যেখানে মহিলাদের শরীর দেখা যায়। ফলে ভবিষতে তালিবানরা যে মহিলাদের খেলাধুলোর ব্যাপারে বাধা দান করবে বলেই মনে করছেন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Featured article

%d bloggers like this: