27 C
Kolkata

বিশ্বে প্রথম, ২০ হাজার কোটি ডলারের মালিক জেফ বেজোস

নিজস্ব সংবাদদাতা : অ্যামাজন প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জেফ বেজোস হলেন দুনিয়ার প্রথম ব্যক্তি, যার সম্পদ ছাড়িয়ে গেল ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। জানাল ফোর্বস এবং ব্লুমবার্গ বিলিওনেয়ারস সূচক।অ্যামাজনের শেয়ার দর ২ শতাংশ বাড়তেই বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির সম্পদ এক ধাক্কায় ৪.৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বেড়ে যায়।বেজোসের মালিকানায় রয়েছে মহাকাশ সংস্থা ব্লু অরিজিন, দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট ও অন্যান্য ব্যক্তিগত বিনিয়োগ।যদিও তার মোট সম্পদের ৯০ শতাংশের বেশিটাই অ্যামাজনের ১১ শতাংশ অংশাদারী থেকে এসেছে। জেফ বেজোসের সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী ম্যাকেনজি স্কটের সম্পত্তি। ৫০ বছরের ম্যাকেনজি এখন বিশ্বের ধনীতম মহিলাদের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে আছেন। প্রথম স্থানে আছেন লরিয়েল এস এ-র উত্তরাধিকারিণী ফ্র্যাঙ্কোইস বিটেনকট মেয়ারস। করোনা অতিমহামারীর মধ্যেই তিন ধনী ব্যক্তির সম্পদের বৃদ্ধি ঘটল অভুতপূর্ব হারে। তাঁদের অন্যতম হলেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস।তৃতীয় যে ব্যক্তির সম্পত্তি সম্প্রতি অভুতপূর্ব হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, তিনি হলেন টেসলা ইনকর্পোরেটেডের কর্ণধার ইলোন মাস্ক। তিনিও এখন যুক্ত হয়েছেন ‘সেন্টিবিলিওনেয়ার’-দের দলে। যাদের সম্পত্তির পরিমাণ ১০০ বিলিয়ন অর্থাত্‍ ১০ হাজার কোটি ডলারের বেশি, তাদের সেন্টিবিলিওনেয়ার বলা হয়। বুধবার টেসলার শেয়ারের দামও যথেষ্ট বেড়েছে। ব্লুমবার্গ বিলিওনেয়ার ইনডেক্স বিশ্বের ৫০০ ধনীতম ব্যক্তির তালিকা তৈরি করেছে। তাতে স্থান পেয়েছেন ইলোন মাস্ক। ইলোন মাস্কের সম্পত্তির পরিমাণ এখন ১০১ কোটি ডলার। অর্থাত্‍ ৭৫ হাজার কোটি টাকার কিছু বেশি। করোনা অতিমহামারীর ফলে প্রায় থমকে গিয়েছে বিশ্বের অর্থনীতি। এই পরিস্থিতিতেও ধনীতম ব্যক্তিদের সম্পদ বাড়ছে বিপুল হারে। ব্লুমবার্গের হিসাব অনুযায়ী, গত জানুয়ারি মাস থেকে বিশ্বের সেরা ৫০০ জন ধনীর সম্পদ বেড়েছে ৮০ হাজার ৯০০ কোটি ডলার। অর্থাত্‍ প্রায় ৬০ লক্ষ কোটি টাকা।

আরও পড়ুন:  ভারতের নিশানায় দুই প্রতিবেশি

Featured article

%d bloggers like this: