28 C
Kolkata

china quarantine :‘‌এটি কী ধরনের কোয়ারেন্টাইন?‌ ‘

নিজস্ব সংবাদদাতা : সামনেই শীতকালীন অলিম্পিক রয়েছে বেজিংয়ে। তার জন্য আরও কড়াকড়ি বাড়িয়েছে চীন। আর সে কারণে দেশ ছাড়ছেন বহু প্রবাসীও। রাজধানী বেজিং এবং সাংহাই ছাড়ছেন বহু পেশাদার। বেজিংয়ে যেসব প্রবাসীরা কর্মসূত্রে থাকতেন, সেই সংখ্যা গত ১০ বছরে এবার ৪০ শতাংশ কমেছে। এর মধ্যে আবার গোদের ওপর বিষফোঁড়ার মত সামনে এসেছে কোয়ারেন্টাইন সমস্যা। ‘‌এটি কী ধরনের কোয়ারেন্টাইন?‌ কেউ একবার দেখতেও আসেন না, যে আমরা কেমন আছি। প্রাথমিক প্রয়োজন ছাড়া আর কোনও সুবিধাই নেই।’‌

একথা বলতে শোনা গেছে দেশের নাগরিকদের। কিন্তু কেন?ভাইরাসটির জন্ম সেদেশেই। কিন্তু এখন সেদেশই তাকে খেদিয়ে বের করতে চায়। আপাতত এটাই লক্ষ‌ চীনের। আর সেই লক্ষ্যপূরণে অমানবিক পদক্ষেপ নিতেও দ্বিধা করছে না তারা। যদি দেখা যায় কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত, তাহলে তাকে ধাতব বাক্সে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে। গর্ভবতী মহিলা বা শিশুদেরও রেয়াৎ করছে না বেজিং।

আরও পড়ুন:  ঢাকাতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্লুপ্রিন্ট
আরও পড়ুন:  Buckingham Palace: উন্মোচিত নতুন রাজকীয় প্রতীক

এই তথ্য প্রকাশিত হল ডেইলি মেল–এ।জানা গিয়েছে, জিয়ান, আনিয়াং আর ইউঝৌয়ের পরিস্থিতি উঠে এসেছে ওই ভিডিওতে। এই তিন শহরে কয়েকটি ওমিক্রন সংক্রমণের ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। তার পরেই তিন শহরের প্রায় দু’‌ কোটি বাসিন্দাকে ছোট্ট কুঠুরিতে কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দিয়েছে বেজিং। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছোট কাঠের বা ধাতব বাক্সে রাখা হয়েছে নাগরিকদের। যাতে সংক্রমণ না ছড়ায়। কোনওমতে সেখানে মাথা গুঁজে রয়েছেন তাঁরা। শুধু শৌচালয়ের সুবিধা দেওয়া হয়েছে।

আর কোনও ব্যবস্থাই নেই। এমনকী সরকারের তরফে যে খাবার দেওয়া হয়, তাও এতটাই কম, যে পেট ভরে না। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, কিছু নাগরিককে মাঝরাতে ঘুম থেকে তুলে বাসে চাপিয়ে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। এও জানা গিয়েছে, যে কোভিড বিধি ভঙ্গের জন্য তিন জনকে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে চীনের আদালত।

আরও পড়ুন:  আগমনীর দিনেই বিসর্জন
আরও পড়ুন:  আগমনীর দিনেই বিসর্জন

Related posts:

Featured article

%d bloggers like this: