25 C
Kolkata

সু কি’র মুক্তির দাবিতে পথে মায়ানমারবাসী

নিজস্ব সংবাদদাতা : মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে ইয়াঙ্গনে হাজার হাজার মানুষ পথে নামলেন। এখনও পর্যন্ত হওয়া বিক্ষোভগুলির মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ এদিনের বিক্ষোভেই অংশ নিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।বিক্ষোভকারীদের মধ্যে যেমন ছিলেন মহিলারা, তেমনই ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারাও।

কারওর আনা ব্যানারে লেখা ছিল ‘Justice for Myanmar’, কারওর ব্যানারে লেখা ছিল, ‘আমরা সেনার স্বৈরতন্ত্র চাই না।’ কুই ফুইয়ো কৌও নামে ২০ বছর বয়সি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক পড়ুয়া বলেন, ‘আমি সেনা অভ্যুত্থানের ঘোরতর বিরোধী।

তাতে যদি আমাকে কঠোর শাস্তি পেতে হয় তাও আমি প্রতিবাদ করব। যতদিন মা সুকিকে ছাড়া হবে না ততদিন বিক্ষোভে অংশ নেব।’ ইয়ে কৌও নামে ১৮ বছর বয়সি অর্থনীতির এক পড়ুয়া বলেন, ‘আমরা ঠিক করেছি, শেষপর্যন্ত লড়াই করব। কারণ এই সেনা অভ্যুত্থান শেষ হলে পরবর্তী প্রজন্ম গণতন্ত্রের স্বাদ পাবে।’

১ ফেব্রুয়ারি মায়ানমারের শাসকদল ‘ন্যাশনাল লিগ অফ ডেমোক্র্যাটিক পার্টি’র মুখপাত্র মায়ও নায়ান্ট জানিয়েছিলেন আচমকা কাউন্সিলর সু কি, প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট ও অন্য নেতাদের আটক করেছে সেনাবাহিনী।

গত বছর বিরোধীদের পরাজিত করে ক্ষমতায় ফিরেছিলেন আং সান সু কি’র দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি । মায়ানমার সংসদের নিম্নকক্ষের ৪২৫টি আসনের মধ্যে ৩৪৬টিতে জয়ী হয় তারা।

কিন্তু, রোহিঙ্গা ইস্যু থেকে শুরু করে একাধিক বিষয়ে বিগত দিনে সেনাবাহিনীর সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়েছে সু কি সরকারের।

Featured article

%d bloggers like this: