33 C
Kolkata

কাছের নক্ষত্রকে আরও কাছ থেকে জানার দরজা খুলল নাসা

নিজস্ব সংবাদদাতা : সূর্যের ‘উঠোনে’ ঢুকে পড়ল নাসা। কুড়িয়ে আনল নমুনাও। মহাকাশ বিজ্ঞানের ইতিহাসে এমন ঘটনা এই প্রথম ঘটল। এই প্রথম পৃথিবীতে তৈরি কোনও মহাকাশযান তো বটেই, কোনও বস্তু ছুঁয়ে দেখল সূর্যকে! সূর্যের বহিরাবরণ, যাকে ‘কোরোনা’ বলা হয়, তা ভেদ করে সূর্যের ভিতরে প্রবেশ করেছে নাসার সৌরতদন্ত যান ‘পার্কার’। এই ‘কোরোনা’-কে চলতি কথায় সূর্যের ‘উঠোন’ বলা যায়। তবে এই এলাকার মাধ্যাকর্ষণ শক্তি প্রবল।

চৌম্বক ক্ষমতাও তীব্র। এতটাই ক্ষমতা ওই দুই শক্তির, যে তা সৌরপদার্থকে ওই বহিরাবরণ পেরিয়ে বার হতে দেয় না। নিরাপদে থাকে সৌরজগতের গ্রহ-উপগ্রহ। পার্কার সেই চত্বরে প্রবেশ করেছে। শুধু তা-ই নয়, সেখান থেকে সৌরপদার্থের নমুনা প্লাজমাও সংগ্রহ করেছে পার্কার। মহাকাশকে জানতে গবেষণার পর গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে নাসা। সৌরজগতকেও জেনে উঠতে পারেনি এতদিনে। সৌরজগতের গ্রহেরই কূল-কিনারা পাননি জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা।

আরও পড়ুন:  Walt Disney Frozen: মাথা কেটে সংরক্ষণ! জীবিত ওয়াল্ট ডিজনির!

কিন্তু সাফল্য যে নেই তা তো নয়, মহাকাশে ঢুঁ দিয়ে ইতিমধ্যেই চাঁদকে ছুঁয়ে ফেলেছে। মঙ্গলেও পাঠিয়েছে মহাকাশ যান, শুক্র নিয়েও নাড়াঘাঁটা চলছে। তবে সেখানেই থেমে থাকল না, বলা যায় এবার সূর্যকেও ছুঁয়ে ফেলল নাসা।২০১৮ সালে এই মহাকাশ যান সূর্যের উদ্দেশে পাড়ি দিয়েছিল। তিন বছর পর তা ছুঁয়ে ফেলল সূর্যকে। এর আগে বহুবার সূর্যের কাছাকাছি পৌঁছেও প্রবেশ করতে ব্যর্থ হয়েছিল পার্কার।

আরও পড়ুন:  Blade: ব্লেড তো ব্যবহার করেন, কিন্তু জানেন কি এর মধ্যে নকশা করা থাকে কেন?

কিন্তু এবার আর ব্যর্থতার মুখ দেখতে হল না, সাফল্যের সোপান খুঁজে পেল ওই সৌর তদন্ত-যান। মহাকাশ যানটি সূর্যকে ছুঁয়ে ফেলায় মহাকাশ গবেষণার জন্য এক বিরাট উৎস পেলেন বিজ্ঞানীরা। সৌর পদার্থ ও চৌম্বক ক্ষেত্রের নমুনা সংগ্রহের পর নাসা মনে করছে এবার শুধু সূর্য নয়, অন্য নক্ষত্রকে চিনতে বা জানতে পারবেন বিজ্ঞানীরা। সেইসঙ্গে সূর্য থেকে সৌর জগতের গ্রহ-উপগ্রহের বিবর্তনের ইতিহাসও তারা জানতে পারবেন। সূর্যের চৌম্বক ক্ষেত্র নিয়ে এর আগে কাজ করেছেন বিজ্ঞানী দিব্যেন্দু নন্দী।

আরও পড়ুন:  Kabul : আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কাবুল

হার্ভার্ডের স্মিথসোনিয়ান সেন্টার ফর অ্যাস্ট্রোফিজিক্সের সঙ্গে যুক্ত দিব্যেন্দু জানাচ্ছেন, পার্কারের সৌরতদন্তের এই সাফল্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল সৌর হাওয়ার উৎপত্তিকে জানা। এর আগে সৌর হাওয়া কী ভাবে সূর্য থেকে পৃথিবীতে এসে পৌঁছয় তা জেনেছিল পার্কার। তবে এ বার সূর্যের কোরোনায় প্রবেশ করে চৌম্বকক্ষেত্র এবং প্লাজমার নমুনা সংগ্রহ করেছে। এ থেকে সৌর হাওয়ার উৎপত্তি কী ভাবে, কখন হচ্ছে তা জানা যাবে।

আরও পড়ুন:  Walt Disney Frozen: মাথা কেটে সংরক্ষণ! জীবিত ওয়াল্ট ডিজনির!

Featured article

%d bloggers like this: