25 C
Kolkata

মহামারী নিয়ে রাজনীতি করার সময় এখন নয়, ট্রাম্পকে বার্তা WHO প্রধানের

নিজস্ব সংবাদদাতা :: করোনা মহামারী নিয়ে রাজনীতি না করার জন্য বিশ্বের নেতাদের কাছে আবেদন জানাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। এই বিপর্যয় মোকাবিলায় প্রত্যেককে একজোট হতে হবে বলে জানিয়েছে তারা। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সমগ্র বিশ্বকে নেতৃত্ব দেওয়ার মতো নেতার অভাব এই মুহূর্তে সবথেকে উদ্বেগের বলে টেড্রোস ঘেব্রেইয়েসুসের অভিমত। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করেই তাঁর এই মন্তব্য বলে অভিমত পর্যবেক্ষক মহলের।ব্রাজিল এবং ভারতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা । যার জেরে সোমবার বিশ্বে মোট সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯০ লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়ে গেল। এ ছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিন এবং অন্যান্য দেশ থেকেও নয়া আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বর মাসের শেষ দিকে চিনে প্রথম করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। সেখান থেকেই এই মারণ ভাইরাস বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। গত মে মাসের মাঝামাঝি বিশ্বজুড়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৫ লক্ষে পৌঁছে যায়। আর তা দ্বিগুণ হয়ে ৯০ লক্ষে পৌঁছতে লেগেছে মাত্র ৫ সপ্তাহ।বিশ্বে মোট আক্রান্তের প্রায় ২৫ শতাংশ আমেরিকার বাসিন্দা। সেখানে এখনও পর্যন্ত ২২ লক্ষ ব্যক্তির শরীরে এই মারণ ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা গিয়েছে। পরিসংখ্যান বলছে, বর্তমানে এই মহামারীর ভরকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে লাতিন আমেরিকা।

আক্রান্তের সংখার নিরিখে আমেরিকার পরেই ব্রাজিল। তৃতীয় স্থানে রাশিয়া। আর চতুর্থ স্থানে ভারত। তবে দেশে প্রতিদিন যে হারে সংক্রমণের ঘটনা বাড়ছে তা চলতে থাকলে খুব শীঘ্রই ভারত রাশিয়াকে টপটে বিশ্বের তৃতীয় সর্বাধিক করোনা সংক্রমিত দেশে পরিণত হবে বলে বিশেষজ্ঞদের অভিমত।চলতি জুন মাসের শুরুর দিকে অধিকাংশ দেশে লকডাউন শিথিল করা হয়। আর তার পর থেকে বিশ্বে করোনা সংক্রমণের রেখচিত্র ঊর্ধ্বমুখী। বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ১ শতাংশ থেকে ২ শতাংশ হারে সংক্রমণের ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে।পরিসংখ্যান বলছে, গত শুক্রবার একদিনে বিশ্বে ১ লক্ষ ৭৬ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, যা এখনও পর্যন্ত রেকর্ড। এর মধ্যে শুধুমাত্র ব্রাজিলেই ৫৪ হাজার ব্যক্তির শরীরে ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। বিশ্বজুড়ে এখনও পর্যন্ত ৪ লক্ষ ৬৪ হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা। মাত্র ৭ সপ্তাহের মধ্যে এই সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। এর মধ্যে সবথেকে খারাপ পরিস্থিতি ব্রাজিলের। সেখানে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। অথচ সেভাবে টেস্টের কোনও সুবন্দোবস্ত নেই। এমনকী এই ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে সে দেশে বর্তমানে স্থায়ী স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদ শূন্য পড়ে আছে। মাঝে রাশ টানা সম্ভব হলেও আমেরিকায় করোনায় মৃতের সংখ্যা ফের বাড়তে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে সে দেশে করোনার বলি হয়েছেন প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার মানুষ। অথচ বহু প্রদেশে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক নয়।

Featured article

%d bloggers like this: