33 C
Kolkata

শীঘ্রই পৃথিবী থেকে শেষ হতে চলেছে প্লাস্টিক

নিজস্ব প্রতিবেদন: পৃথিবীতে ছত্রাক রয়েছে প্রায় ২০ থেকে ৪০ লক্ষ প্রজাতির। সুতরাং এই মাশরুমগুলি ব্যবহার করে ভবিষ্যতে পৃথিবীর বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য রক্ষায় ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে ইতিমধ্যে জানা যাচ্ছে প্লাস্টিক খেকো এক মাশরুমের আবিষ্কার করেছেন ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। বর্তমানে এই মাশরুম শুধুমাত্র আমাজনের জঙ্গলেই পাওয়া যাবে।

বিশ্বে প্রথম প্লাস্টিক আবিষ্কার হওয়ার দিন থেকে শুরু করে এখনও পর্যন্ত মানুষ ৯ বিলিয়ন টন বা ৮১৬ মিলিয়ন কিলোগ্রাম প্লাস্টিক তৈরি করেছে। তার ৯ শতাংশ পোড়ানো গেলে ও বাকি প্লাস্টিক পোড়ানো যায়নি বা পুনর্ব্যবহার করা যায়নি। যা প্রকৃতির জন্য বিপদের বিশাল এক কারণ।

তাই প্রকৃতির দিকে নজর রেখে বিজ্ঞানীরা এমন একটি মাশরুম আবিষ্কার করেছেন যা প্লাস্টিক খায়। অর্থাৎ ভবিষ্যতে প্লাস্টিকের বর্জ্য থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে। পরিবেশবিদরা মনে করেন, যদি এই মাশরুম প্লাস্টিকের বর্জ্যের উপরে তৈরি করা হয় তবে ওই প্লাস্টিক সার হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এই মাশরুমটি জৈব সার হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এটি আমাদের পৃথিবী পরিষ্কার করার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে।

আরও পড়ুন:  ভারতের নিশানায় দুই প্রতিবেশি
আরও পড়ুন:  Railway Track: রেলওয়ে ট্রাকের নীচে থাকে অসংখ্য পাথর! কেন জানেন?

ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীর মতে, বাদামী এই মাশরুম এমন পরিবেশেও তৈরি হতে পারে যেখানে অক্সিজেনের পরিমাণ অনেক কম। কারণ এটি প্লাস্টিকে থাকা পলিউরেথেন গ্রহণ করে এবং সেটিকে জৈব পদার্থে রূপান্তর করে। জৈব পদার্থের মাধ্যমে এটি প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পায়। এই মাশরুম প্লাস্টিককে মাত্র দু’সপ্তাহের মধ্যে জৈব পদার্থে রূপান্তর করতে পারে।

Featured article

%d bloggers like this: