18 C
Kolkata

১০৬ বছরের বৃদ্ধার ২ বার কিস্তিমাত মহামারীকে

নিজস্ব সংবাদদাতা :: একবার নয় , দু বার একেবারে মহামারীকে হারিয়ে দিলেন তিনি। বয়স ১০৬ , নাম আনা দেল ভেলে। স্পেনের বাসিন্দা। আজ থেকে ১০২ বছর আগে ১৯১৮ সালের জানুয়ারিতে স্প্যানিশ Flu তে আক্রান্ত গোটা স্পেন সহ বিশ্ব , টানা ২ বছর অর্থাৎ ১৯২০ পর্যন্ত চলেছিল তার প্রভাব সেই সময়ও স্প্যানিশ Flu তে আক্রান্ত হয়ে দিব্যি সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। আর এবারও পারলেন করোনা তে আক্রান্ত হয়ে ফিরে এলেন আবার নিজের চেনা জীবনে , চেনা ছকে।

এবার যখন করোনা গোটা স্পেন জুড়ে মহামারীর চেহারা নেয় তখন শহরের এক নার্সিং হোমে বার্ধক্য জনিত কারণে চিকিৎসা হচ্ছিলো ১০৬ বছরের আনা দেল ভেলে-র। এরপর সেখানে ভর্তি আরও ৬০ রোগীর কারও শরীর থেকে করোনা গ্রাসে পড়েন তিনি। চলে চিকিৎসা। এখন সুস্থ হয়ে উঠে বাড়ি ফিরেছেন তিনি। তবে বিশ্বে করোনা কে পরাস্ত করে সবচেয়ে বয়স্ক রোগীদের মধ্যে তিনি প্রথম নন কিছুদিন আগেই সুস্থ হয়েছেন ১০৭ বছরের ডাচ বৃদ্ধা কর্নেলিয়া রাস।

আরও পড়ুন:  China: ভারত মহাসাগরে চিনা বাহিনী ঢুকতে পারে, উপগ্রহ চিত্র দিয়ে সতর্ক করল আমেরিকা

প্রশ্ন হচ্ছে এতো বয়েসেও কিভাবে করোনার জীবাণু কে হারাতে পারলেন এঁরা। চিকিৎসকেরা বলছেন যদি রোগীর শরীরে ইমিউনিটি পাওয়ার বেশি থাকে এবং সেই ব্যক্তি যদি ডায়াবেটিস, ক্যান্সার , হাইপারটেনশন , সিওপিডি – র মতো কিছু অসুখে না আক্রান্ত হন তাহলে কখনোই করোনা তে আক্রান্ত হয়ে ওই ব্যক্তির প্রাণ যাবে না। তাঁদের মতে যাঁদের শরীরে ম্যাক্রোফেজ রি একশান , এন্টিবডি রি একশান ভালো তাঁদের শরীর ভাইরাস কে দ্রুত নষ্ট করে দেয়। এই শক্তিগুলো থাকলে বয়স যতই হোক করোনা কে মেরে ফেলা সম্ভব।

Featured article

%d bloggers like this: