22 C
Kolkata

Unknown Facts : ডাইনোসর বসবাসে প্রমান মেলে এই দেশে

নিজস্ব প্রতিবেদন : নাইজার পশ্চিম আফ্রিকার একটি রাষ্ট্র। আয়তনের দিক থেকে এটি পৃথিবীর 22 তম বৃহত্তম দেশ। এই দেশটি নামকরণ করা হয়েছিল নাইজার নদীর নাম অনুসারে। নাইজারের রাজধানী ও সবথেকে বড় শহর হল নিয়ামে। তবে মজার বিষয়, এই দেশে এখনও ডাইনোসরের অস্তিত্বের প্রমান মেলে।

নাইজার দেশ সম্পর্কে কিছু অজানা মজার তথ্য হলো-

১. নাইজার একটি মুসলিম দেশ পৃথিবীর সব থেকে ১০ টি গরিব দেশ দেশের মধ্যে রয়েছে নাইজার দেশটি।

২. নাইজার দেশটি পৃথিবীর সব থেকে উত্তপ্ত একটি দেশ। এই দেশটিতে গরম এত বেশি যে একে বিশ্বের ফ্রাইং প্যান বলা হয়।

৩.নাইজার দেশের 80% মানুষ ইসলাম ধর্মালম্বী। যদিও নাইজেল একটি লোকতান্ত্রিক রাষ্ট্র তবুও এখানে ধর্ম নিয়ে প্রায় সব সময় অশান্তি হতে থাকে।

৪. দেশটির 80 শতাংশ জমি মরুময় এবং মাত্র আড়াই শতাংশ জমি চাষবাসের যোগ্য। অনুর্বর জমি হওয়া সত্বেও এখানে প্রায় 90 শতাংশ মানুষ কৃষির ওপর জীবিকা নির্বাহ করে। এই দেশের মাত্র 4% মানুষ সরকারি কাজের সাথে যুক্ত।

৫. এই দেশে নানান খনিজ পদার্থ পাওয়া যায় যেমন লোহা, সোনা ও খনিজ তেল। কিন্তু দৃষ্টিতে কোন উন্নত প্রযুক্তি না থাকায় তারা এই সকল খনিজ পদার্থ উত্তোলন করতে পারে না।

৬.নাইজার ইউরেনিয়াম উৎপাদনে পুরো বিশ্বের মধ্যে অনেকটা প্রসিদ্ধ। ইউরেনিয়াম উৎপাদনে নাইজার পৃথিবীর মধ্যে ষষ্ঠ স্থান দখল করে আছে।

৭. নাইজার একটি গরিব দেশ হওয়া সত্ত্বেও এখানকার সংস্কৃতি তারা সব সময় অনুসরণ করে চলে। এখানে বসবাস করা প্রত্যেক জাতির ভিন্ন ভিন্ন নাচ থাকে। এখানকার মানুষেরা নাচতে খুব পছন্দ করে। এবং এই দেশের মানুষেরা সবথেকে বেশি রং বেরঙের জামা কাপড় পড়ে ।

৮. নাইজার দেশে সংস্কৃতে অনুসারে এখানে প্রায় উটের দৌড় এবং ঘোড়ার দৌড় হতে থাকে।

৯. নাইজার দেশের মোট জনসংখ্যা প্রায় 2.49 কোটির মত। এবং এখানকার বেশিরভাগ মানুষ কালো রঙের হয়ে থাকে।

১০. নাইজার দেশে এক সময় ডাইনোসর বসবাস করত বলে জানা গিয়েছে। এই দেশের ডাইনোসরের কঙ্কাল পাওয়া গিয়েছে।

Featured article

%d bloggers like this: