28 C
Kolkata

প্রচারে বাধার অভিযোগ প্রার্থীদের, ”তৃণমূল দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে জিতবে” পাল্টা কুণাল

নিজস্ব সংবাদদাতা: সকাল সকাল অভিযোগ! শাসকদলের কর্মীদের বিরুদ্ধে প্রচারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুললেন ৬৮ নম্বর ওয়ার্ডের নির্দল প্রার্থী তনিমা চট্টোপাধ্যায় ও ৭২ নম্বর ওয়ার্ডের নির্দল প্রার্থী সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাভাবিকভাবেই এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের সর্বভারতীয় মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেছেন, ”তৃণমূল দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে জিতবে।”

ভোট শান্তিপূর্ণ করতে হবে, এই কথা সব রাজনৈতিক দলই ‘মুখে’ বলে। কিন্তু বাস্তব চিত্রটা প্রায়শই আলাদা হয়ে যায়। রাজ্যের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায়। বালিগঞ্জে তাঁর নামে লেখা দেওয়াল লিখন মুছে দেওয়া হয়েছে বলেঅভিযোগ তোলেন তিনি। একইভাবে প্রচারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তোলেন সচ্চিদানন্দও। এই নিয়ে KEYkhabor কে তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, ”কোনওভাবেই একু বাধা দেয়নি। এই নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কোনও অবকাশ নেই।” ৯৪ নম্বর ওয়ার্ডের কংগ্রেস প্রার্থী রাহুল নস্করও তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রচারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন। এই প্রসঙ্গে কুণাল বলেছেন, ”যারা বিধানসভায় শূন্য, স্বাভাবিকভাবেই তাঁদের পাশে মানুষ নেই। পুরসভাতেও অবস্থা শোচনীয়।” এরপরই তিনি বলেন, ”অবাধে প্রচার হচ্ছে। তৃণমূল জিতছে জেনে কোথাও কোথাও হিংসায় কেউ কোথাও কিছু করে থাকতে পারে। তৃণমূল কংগ্রেস দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে জিতবে। তাই খেয়ে দেয়ে কাজ নেই যে অন্যের প্রচারে গিয়ে বাধা দেবে।”

আরও পড়ুন:  CBI : সিবিআই-এর নজরে সুকন্যা
আরও পড়ুন:  Sarada Scam : সারদার নথি চুরির মামলায় নির্দেশ হাই কোর্টের

কিছুদিন আগেই ৬৮ নম্বর ওয়ার্ড থেকে সুব্র মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায়কে পুরভোটে টিকিট দেবে বলে ঘোষণা করে তৃণমূল। এরপরই সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে দল, টিকিট দেওয়া হয় ওই ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর সুদর্শনা মুখোপাধ্যায়কে। একইভাবে সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়ও টিকিট না পেয়ে নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেন। নির্দল হিসেবে মনোনয়ন দেন তনিমাও। তৃণমূলের পক্ষ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের কথা বলা হলেও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন দুই প্রার্থী। এরপরই তৃণমূল তাঁদের বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়। বহিষ্কারের কয়েক ঘণ্টা পরই প্রচারে বাধার অভিযোগ আনলেন তাঁরা।

Featured article

%d bloggers like this: