25 C
Kolkata

Chandan design:নব বধূর সাজে চমক আনতে পারে সুন্দর কলকা

নিজস্ব সংবাদদাতা :প্রত্যেক মেয়েই নিজের বিয়ের সাজে একটু বাঙালিয়ানা ছোঁয়া রাখতে পছন্দ করেন। সেই সাজের মূল আকর্ষণ লাল বেনারসি ,হাতে শাখা পালা,পায়ে আলতা আর কপালে চন্দন। বাঙালি কনে বলতেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে ।ছোঁয়া ছাড়া বাঙালি বিয়ে যেন ভাবাই যায় না। আজকের আধুনিক কনে যতই অন্যরকম সাজপোশাক করুক, কপালে তার চন্দনের আল্পনা থাকবেই। তাই বিয়ের মরসুমে অসাধারণ কিছু কলকা ডিজাইন রইল আপনাদের জন্য।

তবে কলকা করতে গেলে কিছু বিষয় মাথায় রাখা আবশ্যক।মুখের গড়ন বিশেষ করে কপালের আয়তন দেখে চন্দনের ডিজাইন বেছে নেবেন। কপাল ছোট হলে হাল্কা ডিজাইন করবেন। কপাল চওড়া হলে একটু ঘন ডিজাইন করবেন। দুই ভুরুর মাঝখানে যে টিপ দিচ্ছেন সেটা একটু বড় আকারের রাখবেন। বা একটা বড় মাংটিকা বা টিকলি পড়বেন, যাতে কপালের বেশিরভাগ অংশ ঢেকে যায়।গালে আর চিবুকের কাছে চন্দন বাধ্যতামূলক নয়। যদি আপনার মনে হয় এতে সাজ এবশি জবরজং হয়ে যাচ্ছে তাহলে এটা বাদ দিন।গালে ব্রণ বা ফুস্কুরি থাকলে হাল্কা ডিজাইন করতে পারেন যাতে সেটা ঢেকে যায়। শুধু চন্দন শুকিয়ে গেলে দেখতে বাজে লাগে তাই চন্দনের সঙ্গে অ্যাক্রিলিক কালার মিশিয়ে দেবেন যাতে তার ঔজ্জ্বল্য বজায় থাকে।নতুন তুলি দিয়ে চন্দন লাগাবেন।তুলি একটু পুরনো হলেই ভাল। বিয়ে আর বউভাতের ডিজাইন যেন আলাদা হয়।এক ডিজাইন হলে তা ভাল লাগবে না। বিয়ে বৌভাতের সাজ যেহেতু আলাদা হয় তাই কলকা ডিজাইন আলাদা হওয়ায় শ্রেয়। কপালে যে ডিজাইন করেছেন সেটার সঙ্গে যেন গাল আর চিবুকের ডিজাইনের সামঞ্জস্য থাকে।

আরও পড়ুন:  Bagda Sea Beach: ২০০০ টাকার মধ্যেই ঘুরে আসুন এই সুন্দর বিচে

Featured article

%d bloggers like this: