26 C
Kolkata

Tourist Spot: স্বপ্ন নয় বাস্তব! হিসেব কষে মাত্র ১০,০০০ টাকায় দার্জিলিং-কার্শিয়াং-কালিম্পং-মিরিক ভ্রমণ

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙালিদের মন সর্বদা ভ্রমণ পিপাসু। আর আমাদের রাজ্যেও তেমনই ভ্রমণবিলাসী মানুষদের জন্যে রয়েছে অনেক ঘোরার জায়গা। খরচও সাধ্যের মধ্যেই। শুধু হাতে চাই সঠিক ট্যুর প্ল্যান আর দৈনন্দিন কাজ থেকে কিছুদিনের একটু বিশ্রাম। যারা ঘুরতে ভালোবাসেন অথচ পকেটে টান তাঁরা অল্প খরচেই এবার দার্জিলিং-কার্শিয়াং-কালিম্পং-মিরিকে অনায়াসে ঘুরতে পারবেন। তাও আবার মাত্র ৫ দিনে।

কিভাবে যাবেন- যেকোনো জায়গা থেকে বাগডোগরা অথবা এনজিপি রেল স্টেশন পর্যন্ত প্লেনে অথবা ট্রেনে করে চলে আসতে হবে। তারপর দেড় ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে যাওয়া যাবে মিরিক। মিরিকের সকালে প্রাতরাশ করবার একাধিক রেস্তোরাঁ রয়েছে। প্রাতরাশ করার পর মিরিকের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনুভব করবার জন্য বেরিয়ে পড়তে হবে। উল্লেখযোগ্য আকর্ষণীয় জায়গা মিরিক লেক। এরপর ডেস্টিনেশন অবশ্যই কার্শিয়াং।

অর্কিডে ভরা কার্শিয়াং অপরূপ সুন্দর, একবার গেলে মন ভরে যাবে। অলস সকালে কার্শিয়াং ঘোরার মজাটাই আলাদা। কার্শিয়া- এর সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দেখবার জায়গা ডাওহিল। দিনের বেলাতেও ডাওহিল এর জঙ্গলে গা ছমছমে অনুভূতি রয়েছে, ভুতুড়ে জায়গা বলে পরিচিত ডাওহিল। এছাড়াও এখানে রয়েছে শতাব্দী প্রাচীন চার্চ। পরবর্তী ডেস্টিনেশন দার্জিলিং।

আরও পড়ুন:  Fair skin: এবার ফর্সা হন এক সপ্তাহে

দার্জিলিংয়ের প্রাকৃতিক শোভা পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় চিরদিনই। সূর্যোদয় দেখতে হলে খুব তাড়াতাড়ি উঠে পরতে হবে। তারপরই পৌঁছে যেতে হবে টাইগার হিলে। আকাশ পরিষ্কার থাকলে অপরূপ সুন্দর কাঞ্চনজঙ্ঘাকে দেখতে পাওয়া যাবে। দার্জিলিংয়ে দেখবার জন্য একাধিক জায়গা রয়েছে, যা পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয়। বিশেষ করে চিড়িয়াখানা, এছাড়া বাতাসিয়া লুপে টয়ট্রেনের সাফারি নজর কাড়ে। এখানে টয়ট্রেন গরুর গাড়ি থেকেও আস্তে চলে। দার্জিলিংয়ের প্রাকৃতিক দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করতে করতে ক্লান্ত হয়ে যেতে হবে। পড়ন্ত বিকেলে যাওয়া যেতে পারে ম্যাল। এর পরবর্তী ডেস্টিনেশন কালিম্পং

কালিম্পং-এর প্রাকৃতিক পরিবেশ ও মনোমুগ্ধকর। কালিংপং থেকে দেড় ঘন্টা দূরে রয়েছে লাভা। এখানে দেখবার মতো অনেক কিছু রয়েছে। লাভার প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে দেখতে মনের ক্লান্তি কেটে যাবে। লাভার পাশে রয়েছে লোলেগাঁও। এটিও একটি আকর্ষণীয় জায়গা।

আরও পড়ুন:  Senior Citizens Tour Plan: এবার ভ্যালেন্টইন্সডেতে ৬০ ঊর্ধ্ব সঙ্গীটিকে নিয়ে ঘুরে আসুন হানিমুনে

এখান থেকে চলে যাওয়া যাবে গরুবাথান হয়ে নিউ মাল জংশন। সেখান থেকে কাঞ্চনকন্যা করে আবার নিজের গন্তব্যে ফেরা। অথবা শিলিগুড়ি পৌঁছে বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়া। হাজার দশেক টাকা থাকলেই ঘোরা যাবে দার্জিলিং-কার্শিয়াং-কালিম্পং-মিরিক। তবে গাড়ি ভাড়া আগেভাগেই ঠিক করে নিতে হবে, কারণ মাঝে মাঝে গাড়ি ভাড়া বেশি চেয়ে বসে চালকরা।

Featured article

%d bloggers like this: