33 C
Kolkata

God Habbits:মেঝেতে বসে খান, পাবেন উপকার

নিজস্ব সংবাদদাতা:বর্তমানে আমাদের অভ্যাস হয়ে গেছে টেবিল,চেয়ারে বসে খাওয়ার। কিন্তু জানেন কি? মেঝেতে বসে খাওয়া বেশি উপকারী। অনেক সমস্যা নিমিষেই দূর হতে পারে এর ফলে। তাই মেঝেতে বসে বাবু হয়ে খান। কি ফল পাবেন.জানুন-

১)মেঝেতে বাবু হয়ে বসে খেলে খাবার দ্রুত হজম হয়। অনেকেরই হজমজনিত সমস্যা রয়েছে। তাদের জন্য বসে খাওয়ার উপকারিতা অনেক। মেঝেতে বসে খাবার খাওয়ার সময় সামনে মাথাটা সামন্য ঝুঁকে আবার সোজা হয়ে বসেন, এটাই স্বাভাবিক অভ্যাস। বারবার এ ঘটনা ঘটে বলেই হজম হয় দ্রুত।

২)মেঝেতে খাওয়ার আরও এক উপকারিতা হলো, দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ঠিক থাকা। এতে করে দেহ অনেক সমস্যা কাটিয়ে ওঠে। পেশী শক্তিশালী করার পাশাপাশি সঠিক ভঙ্গিতে বসার কারণে শরীরে রক্ত সঞ্চালনের উন্নতি ঘটে। এতে হৃত্‍পিণ্ডকেও কম পরিশ্রম করতে হয়।

আরও পড়ুন:  মানুষেরই নতুন প্রজাতির খোঁজ মিলল ফিলিপিন্সের গুহায়

৩)মেঝেতে বসে খাবার খেলে মেরুদণ্ডের নীচের অংশকে জোর দেওয়া হয়। এটি আপনার শ্বাসের গতি নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। পেশীগুলোর স্ট্রেন এবং রক্তচাপ হ্রাস করে।

আরও পড়ুন:  মানুষেরই নতুন প্রজাতির খোঁজ মিলল ফিলিপিন্সের গুহায়

৪)জয়েন্টের ব্যথায় কাবু অনেকেই। তবে মাটিতে বসে খাবার খেলে জয়েন্টের ব্যথা থেকেও মুক্তি মেলে। কারণ এজন্য আপনার হাঁটু বাঁকাতে হয়। এতে হাঁটুর অনুশীলনও হয়ে যায়। মেঝেতে বসে খাবার খাওয়া হিপ সন্ধি, হাঁটু এবং গোড়ালি নমনীয় করে তোলে। এ কারণে আপনি জয়েন্টে ব্যথার সমস্যা এড়াতে পারবেন সহজেই।

৫)শরীরের সুস্থতা বজায় রাখতে রক্ত সঞ্চালন ঠিক রাখার বিকল্প নেই। মেঝেতে বসে খাবার খেলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে। এটি হার্টের চারপাশের চাপ হ্রাস করে। আপনি যদি হার্টের রোগী হন, তাহলে ডাইনিং টেবিল বা টেবিল-চেয়ারে বসে না খেয়ে মেঝেতে বসে খাবার খাওয়ার অভ্যাগ গড়ুন।বাবু হয়ে বসে খাওয়ার অভ্যাস করলে কোমর, পা থেকে মেরুদণ্ড, সবকিছু উপকৃত হয়।

আরও পড়ুন:  Hair Mask: পুজোর আগে চুলের সৌন্দর্য বাড়াবার চাবিকাঠি

৬)বাবু হয়ে বসে খাবার খেলে দ্রুত ওজনও কমে। এতে অ্যাবডোমেনের মাসেলের মুভমেন্ট হয়, যা পেটের মেদ অনেকটা কমতে পারে। এ ছাড়াও বসে খাবার খাওয়ার সময় আপনি বেশি খেতেও পারবেন না। সব মিলিয়ে ওজন কমাতেও কার্যকরী মেঝেতে বসে খাওয়ার পদ্ধতি।

আরও পড়ুন:  Durga Chatu: দুগ্গাছাতুর উপকারিতা

Featured article

%d bloggers like this: