33 C
Kolkata

Healthy Tips for Monsoon:বর্ষাঋতুর স্বাস্থ্যকর বিধি

নিজস্ব প্রতিবেদন: মৌসুমী বায়ুর আগমনের সঙ্গে সঙ্গে আগমন ঘটে বর্ষাঋতুর। কখনো ঝিরিঝিরি, কখনো মুষলধারে বজ্রবিদ্যুৎ সহযোগে বৃষ্টিপাত। কখনো ছুটির দিনে, জানলার ধারে চুপচাপ বসে গরম গরম তেলেভাজা সঙ্গে নিয়ে বৃষ্টি উপভোগ করা। কখনো বা কাজের সময় লোডশেডিং-এ নাজেহাল হওয়া। কোথাও জমা জলে কাগজের নৌকা ভাসানো ,কোথাও বা এক হাটু জলে চুপচুপে ভিজে বাড়ি বা অফিস যাওয়া। বর্ষাকাল এইভাবেই কারোর কাছে প্যাঁচপ্যাঁচে গরম থেকে রেহাই পাওয়ার মরসুম , খিচুড়ি খাওয়ার বাহানা আবার কারোর কাছে রাস্তার নোংরা জমা জল, বিদ্যুতের খুঁটির ছেড়া তাঁর, কাজের ক্ষতি।


তবে,বর্ষাকাল শুধু একা আসে না। সাথে করে নানা রোগও নিয়ে আসে। যেমন ধরুন কলেরা, টাইফয়েড ,ম্যালেরিয়া , ডেঙ্গু, গ্যাস্ট্রোনেটিস ইত্যাদি। মূলত বর্ষাকালের খাবার-দাবার, জলের কারণে এইসব রোগ হয়ে থাকে। তবে চিন্তা করার কোনো কারণ নেই। একটু সাবধানতা অবলম্বন করলেই আপনি নীরোগ থাকার সাথে সাথে মন খুলে বর্ষাঋতুর আনন্দ উপভোগ করতে পারেন।

আরও পড়ুন:  Alia Bhatt-SS Rajamouli: হলিউড অভিনেতার সঙ্গে আলিয়া


বর্ষাকাল যেমন গ্রীষ্মের তাপ ও উষ্ণতা থেকে মুক্তি দেয় ,তেমনি এই মরসুমে রোগ-জীবানু খুব দ্রুত ছড়ায়। তাই প্রথম যে কাজটি অতি অবশ্যই পালন করতে হবে তা হলো বাইরে থেকে এসে ভালো করে সাবান বা লিকুইড সোপ দিয়ে হাত-মুখ ধুয়ে ফেলা। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবারে প্রচুর পরিমানে রোগ প্রতিরোধক গুন থাকে। তাই খাদ্য তালিকায় ভিটামিন সি জাতীয় খাবার অবশ্যই রাখতে হবে। বিভিন্ন টক জাতীয় ফল,কাঁচা হলুদ, নিমপাতা, আমলকি, কাঁচা লঙ্কা , ব্রকোলি ,টমেটো, স্ট্রবেরি, সবুজ শাক-সবজি , গরম দুধ প্রভৃতি নিয়মিত ডায়েটে রাখলে দুর্বল হওয়া থেকে আপনাকে রক্ষা করবে । জ্বর , সর্দি , কাশি হলেও তা তাড়াতাড়ি সেরে যাবে।

আরও পড়ুন:  Bumrah : বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেন বুমরাহ, পরিবর্ত কে?


রাস্তার খাবার এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। মূলত বেশিরভাগ রোগ কিন্তু বর্ষাকালে বাইরের খাবার খাওয়ার ফলেই হয়ে থাকে। ফল-মূল ,শাক-সবজি ভালো করে ধুয়ে খাবেন। কারণ তরি-তরকারিতে অনেক জীবাণু,ময়লা লেগে থাকে।বার বার গরম জল পান করার চেষ্টা করুন। এতে অনেক জীবাণু মরে যায়। অপরিষ্কার, ভিজে জামাকাপড় ,জুতো ব্যবহার করলে তার থেকে দুর্গন্ধ ছড়াবে এবং জীবাণু বাসা বাঁধবে। স্বাস্থ্যের জন্য তা একদম ভালো না। বর্ষাকালে আশেপাশে পরিষ্কার জমা জলে মশার লার্ভা জন্মায়। সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে মশার প্রতিরোধক ব্যবহার করতে হবে। বৃষ্টিতে ভিজার পর শীততাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রটি হটাৎ করে চালিয়ে বসবেন না। এতে ঠান্ডা লাগতে পারে, এমনকি জ্বরও হতে পারে। কিছু নিয়মবিধি মেনে চলুন, সুস্থ থাকুন আর বৃষ্টির নৈসর্গিক সৌন্দর্য্য উপভোগ করুন।

আরও পড়ুন:  Hair Mask: পুজোর আগে চুলের সৌন্দর্য বাড়াবার চাবিকাঠি
আরও পড়ুন:  Bengal Cricket Team : মুস্তাক আলি ট্রফির দল ঘোষণা করল সিএবি

Related posts:

Featured article

%d bloggers like this: