35 C
Kolkata

HILSA PRICE: পয়লা বৈশাখে পাতে পদ্মার ইলিশের পেটি দেখতে চান? দাম জেনে নিন

নিজস্ব প্রতিবেদন: পয়লা বৈশাখে পাতটা একটু মনের মতো করে সব খাদ্যপ্রিয় বাঙালিই চায়। কিন্তু থালা ভরাতে গিয়ে পকেট খালি হওয়াটা আটকানো সম্ভব নয়। সেই কারণেই অনেকে জিভে লাগাম টেনেছেন। কিন্তু ইলিশের স্বাদ যে টাকায় মানে না। তাও সে যদি হয় পদ্মার ইলিশ। তাতে হাত দিলেই ছেঁকা লাগা মাস্ট। বাংলাদেশে ইলিশের অন্যতম পাইকারি বাজার চাঁদপুর। বাজার মন্দা।  ১২৭ টন ইলিশ বিক্রি এখনও বাকি রয়েছে। ২০০ থেকে ৪০০ টাকা বেড়েছে ইলিশের দাম। এক কেজি বা তার বেশি ওজন দামের ইলিশ বিকোচ্ছে ১ হাজার ৭০০ থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকায়। অন্যদিকে, ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রামের মাছ বিক্রি হচ্ছিল ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৪০০ টাকায়। এরও দাম বেড়েছে ২০০ থেকে ৪০০ টাকা বেশি দরে। দাম শুনেই মুখ ফেরাচ্ছেন ক্রেতারা। ঢাকার অভিজাত কারওয়ান বাজারের ইলিশ বিক্রেতা জিয়াউল হক বাজার নিয়ে মতামত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সকাল থেকে ১০ কেজি ওজনের মাছও বিক্রি হয়নি। তিনি মনে করেন, রমজান আর পয়লা বৈশাখ একসঙ্গে পড়েছে বলেই বাজারের ই অবস্থা। বাংলাদেশে ইলিশের ৬টি অভয়াশ্রমের মধ্যে পাঁচটিতে সব ধরনের মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। দু’মাসের জন্যে জারি এই নির্দেশিকা। চাঁদপুরের খন্দকার ফিশ প্রসেসিং অ্যান্ড আইস প্ল্যান্ট কমপ্লেক্স হিমাগারে ১৩০ টন ইলিশ সংরক্ষণ করা হয়েছিল। বুধবার এই হিমাগার থেকে মাত্র ৩ টন ইলিশ বিক্রি হয়েছে। বাকি ইলিশ হিমাগারেই রয়েছে। খোকা ইলিশ সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২২-এর উদ্বোধন করে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদমন্ত্রী রেজাউল করিম সতর্কতা দিয়েছেন। তিনি বলেন, “খোকা ইলিশ জাটকা নিধন বন্ধ না হলে একসময় ইলিশ থাকবে না। কেউ আইন লঙ্ঘন করতে পারবেন না। মাঝেমধ্যে কয়েকজন মৎস্যজীবী নিয়ম ভাঙেন। তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রয়োজনে বরফকল বন্ধ রাখতে হবে, যাতে ওই মৎস্যজীবীরা মাছ সংরক্ষণ করতে না পারেন। বাজারগুলোয় ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত রাখা হবে। যেখানে যিনি জাটকা নিয়ে আসবেন, তাঁকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে। ইলিশ সম্পদ নষ্ট করার সুযোগ কোনভাবেই কোন দুর্বৃত্তকে দেওয়া যাবে না।” 

আরও পড়ুন:  Mujib: ‘কান’-এ গেলেন ‘বঙ্গবন্ধু’

Featured article