29 C
Kolkata

How To Live Happily: জীবন জটিল হয়ে যাচ্ছে? দৈনন্দিন এই পাঁচটি উপায়ে হবে সমস্যার সমাধান

নিজস্ব প্রতিবেদন: আপনি আপনার জন্য। জন্ম, মাস, বার, প্রতিটা মুহুর্তে অধিকার শুধু আপনারই। অনেক বই, পোস্টে এধরনের লেখা পড়লেও জীবনে তাকে গুরুত্ব দিয়ে বাস্তবায়িত করা মোটেই সম্ভব নয়। আর এর পিছনে প্রথম কারণ হল পরনির্ভরশীলতা। বর্তমান এই ডিজিটাল জীবনযাপনে স্মাইলি দিয়ে হাসতে পারলেও, পাশে পাওয়া যায়না। এছাড়াও রয়েছে কর্মক্ষেত্রে ব্যর্থতা। সাংসারিক অশান্তি ইত্যাদি। কিন্তু আপনার ভালো থাকা তো আপনারই হাতে। কোন দিকে জীবনের স্টিয়ারিং ঘোরাবেন, তা এক ঝলকে দেখে নিন। খুব সহজ ভাষায় জীবনে শান্তি ফিরিয়ে আনতে পারবেন। শুধু মাথায় রাখুন এগুলি –

১) সকালে উঠে জীবনকে ধন্যবাদ জানান: আপনি যে বেঁচে উঠেছেন, এর থেকে বড় কিছু আর হতে পারে না। নতুন দিনকে ধন্যবাদ জানান। সেই পরমাত্মাকে ধন্যবাদ জানান যে নতুন শুরুটা আপনার উপহার দিয়েছেন। কোনও অন্ধবিশ্বাস বা মূর্তি নয়, পরমাত্মা হল এক শক্তি।

২) খারাপ পরিবেশ ও মন্তব্য এড়িয়ে চলুন: ভাবুন, চারপাশে যারা আছে সকলেই এক ও আপনার থেকে ভিন্ন। তাই আপনার মতামত বা চাহিদার সঙ্গে তাদের কোনও মিল নেই। আর মিল না থাকলে প্রত্যাশা পূরণের কোনও জায়গাও নেই। আপনিই আপনার সবচেয়ে বড় ভরসা এবং বেঁচে থাকার একমাত্র কারণ। তাই অন্যকে ভালোবাসুন, দান করুন তা ফিরে পাওয়ার কোনও আশা ছাড়াই। দেখবেন সুন্দরভাবে বাঁচার ইচ্ছে বাড়বে।

৩) উপকার করার মনোভাব রাখুন: হীত কর্ম কখনওই অর্থবলের উপর নির্ভরশীল নয়। সকালে ঘুম থেকে উঠে একটা বিস্কুট যদি পাখিকে খাওয়ানো যায়, তাতেও শান্তি হবে মনে। বা কারওর কোনও জিনিস পড়ে গেলে সেটা তুলে দেওয়া। পরিবারের কাউকে এক গ্লাস জল চাইলে দেওয়া। আর যদি যৎসামান্ন অর্থ থাকে তবে তা ভিক্ষুক বা অসমর্থকে দান করা।

৪) চাহিদা কমিয়ে দেওয়া: বেঁচে থাকতে গেলে যা না থাকলেই নয়, আগে টা জোগাড় করুন। খুব দ্রুত টাকা পেতে থাকলেই চাহিদা আকাশ ছোঁয়া হয়ে যায়। এরপরই যদি আয় একটু কম হয়ে যায়, পাওয়া মেটানো মুশকিল হয়ে দাঁড়ায়। সঙ্গে বেঁচে থাকাও। তাই যেটুকু আছে তাকে বুদ্ধি দিয়ে খরচ করুন। হঠকারী সিদ্ধান্ত নেবেন না। অল্পে মনকে ভরানোর চেষ্টা করুন। আপনার কাছে গাড়ি কেনার টাকা থাকলেই কিনে ফেলবেন না। ভাবুন, গাড়ি খারাপ হলে বা তার দৈনন্দিন তেলের খরচ দিয়ে পেট চালানোর মত সামর্থ্য আপনার আছে কি না। গাড়ি কিনে দু’দিন পর সংসারে অন্ন জোগানো দায় হলে তা কখনওই ভেবে চিন্তে নেওয়া সিদ্ধান্ত নয়।

৫) ঘুমনোর আগে পড়া বা শোনা: গোটা দিনের ধকল কাটানোর জন্য রাতে ঘুমের প্রয়োজন। ঘুমনোর আগে একটি ছোট্ট পদ্ধতি কাজে লাগিয়ে দেখতে পারেন। মনকে শান্ত করার বিভিন্ন বাণী ইউটিউবে এখন খুবই সহজে পাওয়া যায়। Meditation এর মন্ত্র শুনতে পারেন। একাধিক পন্থা রয়েছে মনকে শান্ত করার। মনে রাখতে হবে মন শান্ত হলে সমস্যার মোকাবিলা করা অনেক সহজ। যার ফলে বেঁচে থাকাও জটিল মনে হবে না।

উপকার পেলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ। জীবন সুখকর হোক।

আরও পড়ুন:  Cheese Benefits Proved: চিজ খেলে নিয়ন্ত্রণে থাকবে এই রোগগুলি! দেখুন একঝলকে
আরও পড়ুন:  Cheese Benefits Proved: চিজ খেলে নিয়ন্ত্রণে থাকবে এই রোগগুলি! দেখুন একঝলকে

Featured article