27 C
Kolkata

Jamai Shosthi: জামাইষষ্ঠী চিরজীবী হোক, মেয়ে আমার থাকে যেন দুধে-ভাতে

নিজস্ব প্রতিবেদন: একে তো জ্যৈষ্ঠ মাস তারপর শুক্লা ষষ্ঠী ,বুঝতেই পারছেন চলে এল শাশুড়ি জামাইয়ের স্পেশাল দিন,বাঙালির জামাই ষষ্ঠী।বছরের বাকি দিনগুলি জামাইবাবু শশুরবাড়ি যেতে না পারলেও, জামাইষষ্ঠী মিস করার ভুল, সে স্বপ্নেও চিন্তা করবেনা।শাশুড়ি মায়েরা যেমন তাঁর রান্নার হাতের কামাল দেখিয়ে সাধুবাদ কুড়ানোর সুযোগ পান, তেমনি জামাইদের হাতেও ভুরিভোজ খাওয়ার সুবর্ণ সময় চলে আসে। পয়লা আষাঢ় অর্থাৎ ১৬ জুন, বুধবার বাঙালির ঘরে ঘরে মাতৃত্বও বংশবৃদ্ধির কামনাৰ্থে মঙ্গলধ্বনি, উলুধ্বনি সহযোগে মায়েরা তাঁদের পরম আদরের কন্যা সন্তানের সুখী দাম্পত্য জীবনের মঙ্গল কামনায় মা ষষ্ঠীর ব্রত পালন করবেন।

আচ্ছা, মা ষষ্ঠী কি তাহলে কানে কানে এসে বলে গেলেন যে জামাইকে হাতে রাখলে মেয়েও সুখী থাকবে? কারণ মনের রাস্তার হদিশ পেতে হলে পেটের রাস্তা দিয়েই যেতে হবে। সে যাই হোক ভাবনাটা কিন্তু মন্দ নয়! তবে মনের রাস্তার ঠিকানা পেতে গিয়ে শ্বশুড় মশাইয়ের পকেটের হাল স্বয়ং তিনি আর হরিই জানেন। এই দুর্মূল্যের বাজারে জামাইকে পঞ্চব্যঞ্জনের সাথে আম-জাম-কাঁঠাল, চিঙড়ি, ইলিশ, কচি পাঁঠা,,দই,মিষ্টি, সন্দেশ সব সাজিয়ে মুখে তুলে দিতে গিয়ে শ্বশুড় মশাইয়ের রক্তচাপ ঊর্ধ্বমুখী হলেও হতে পারে। আর অন্যদিকে, চক্ষুলজ্জার খাতিরে নিজের স্ট্যাটাস বজায় রাখতে গিয়ে জামাই বাবাজীবনকেও নিজের পকেট বেশ খানিকটা হালকা করতে হতে পারে।

তবে ভিতর ভিতর যাই চলুক না কেন, মোবাইল ফোনে কুটুস করে কয়েকটি ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করতে পারলেই জামাইষষ্ঠীর অনুষ্ঠানটির উৎযাপন সার্থক। দক্ষিণ এশিয়ার দিকে একসময় রীতি ছিল সন্তানের মা না হওয়া অবধি মেয়ে মাতৃগৃহে আসতে পারবে না। ওদিকে মেয়ের চিন্তায় মা-বাবার প্রাণ তো ওষ্ঠাগত। তাই জামাই আদরের দ্বারা মেয়ের মুখ দেখার আশায় শুক্লা ষষ্ঠীর তিথিতে জামাই ষষ্ঠী পালন করার রীতি শুরু হয়।

সে যাই হোক, প্রার্থনা করি বাঙালির ঘরে ঘরে জামাই আদরের এই উৎসব চিরজীবী হোক। মেয়ে-জামাই -শ্বশুড় -শাশুড়ির মুখ যেন মা ষষ্ঠীর কৃপায় সর্বদা হাসি বিদ্যমান থাকে।যারা এখনও জামাই হওয়ার সুযোগ পান নি, চিন্তা করবেন না আসছে বছর আবার হবে।

আরও পড়ুন:  5G Launch: দেশবাসীর জন্য বড় উপহার! চালু ৫জি পরিষেবা

Featured article

%d bloggers like this: