33 C
Kolkata

Secret of baby skin:ত্বকের তারুণ্যের রহস্য

নিজস্ব প্রতিবেদন: বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের চামড়া শিথিল হয়ে পরে। ত্বকের ঔজ্জ্বল্য কমতে শুরু করে। চামড়ায় ভাঁজ ,বলিরেখা, মেচেতা প্রভৃতি বয়সের ছাপগুলি স্পষ্ট হয়ে ওঠে। এসবের পিছনের মূল কারণটি হলো কোলাজেন ঘাটতি । কোলাজেন একটি প্রোটিন যা শরীরে থাকে। বয়সের সাথে সাথে কোলাজেন সংশ্লেষণ কমতে থাকে। কোলাজেন প্রোটিন, ত্বককে টানটান রাখতে সাহায্য করে। শিশুদের ও কিশোরদের শরীরে কোলাজেনের মাত্রা সবচেয়ে বেশি থাকে।


৩০ বছরের পর থেকে প্রতিবছর এক শতাংশ হারে শরীরে কোলাজেনের মাত্রা কমতে শুরু করে। তবে বর্তমানে বাইরে থেকে নেওয়া কোলাজেন সাপ্লিমেন্ট,ইনজেকশন ,উপযুক্ত খাদ্যতালিকা ,ব্যায়াম ,সঠিক জীবনশৈলী দ্বারা নিজেকে চির নতুন করে রাখতে পারেন। এবার জেনে নেওয়া যাক কিভাবে বাড়িতে বসেই নিজের ত্বককে সুন্দর করে ধরে রাখবেন। অবশ্যই তার সাথে সাথে ব্যায়াম,পর্যাপ্ত ঘুম ,পুষ্টিজাতীয় খাবার খেতে হবে।

আরও পড়ুন:  Flipkart-এ অর্ডার ছিল ল্যাপটপের, কিন্তু বাড়িতে যা এল.....

নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার রাখুন। কোনো মাইল্ড ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধোবেন। বেশি কেমিক্যাল জাতীয় প্রোডাক্ট ব্যবহার না করাই ভালো। অবশ্যই ভালো কোনো ব্র্যান্ডের এক্সফোলিয়েটার দিয়ে মুখ এক্সফোলিয়েট করবেন। এর ফলে ত্বকের মরা কোষগুলি মুখ থেকে উঠে যাবে। ভিতরের সুন্দর ত্বকটি বেরিয়ে আসবে। সেইসব প্রোডাক্ট ব্যবহার করবেন যাতে ভিটামিন সি ,হায়ালুরোনিক অ্যাসিড ,ভিটামিন এ এবং ভিটামিন বি প্রভৃতি রয়েছে। ভিটামিন সি কোলাজেনের পরিমান বাড়াতে সাহায্য করে। হায়ালুরোনিক অ্যাসিড ত্বকে জল ধরে রাখতে সাহায্য করে। ভিটামিন এ এবং ভিটামিন বি ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখে। অ্যান্টি-এজিং ধর্মের জন্য ত্বক অনেক সুন্দর দেখায়। মাঝে মাঝে ঈষৎ উষ্ণ জলে মুখ ধোবেন। ভালো কোম্পানির সিরাম, ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন। যার মধ্যে অ্যান্টি-এজিং গুন রয়েছে।

আরও পড়ুন:  Mallikarjun Kharge: রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতার পদ ছাড়লেন খাড়গে


তবে ঘরোয়া উপায়েও আপনি টানটান ত্বক পেতে পারেন। অ্যালোভেরা জেল, হলুদ, বেসন, চন্দন প্রভৃতির মধ্যে অ্যান্টি-এজিং গুন রয়েছে। ডিমের কুসুমের নিয়মিত ব্যবহার ত্বক টানটান রাখে। দিনে ৩-৪ লিটার জল পান করুন। শাক-সবজি বেশি পরিমানে খান। দিনে ১-২ টি করে ফল খাওয়া ভালো। লেবু আর কাঁচা লঙ্কাতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি থাকে। যা একদম আমাদের সাধ্যের মধ্যে। ধূমপান ,অ্যালকোহল প্রভৃতির ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। যোগাভ্যাস -প্রাণায়াম -ব্যায়াম দ্বারা শুধু মুখই না শরীর,মনও ভালো থাকবে। সর্বপরি,আনন্দে থাকুন । অযথা চিন্তা করলে শরীরে ও মুখে তার প্রভাব পড়বে। আর মুখই তো হলো মনের আয়না।

আরও পড়ুন:  Mahishasur Marddini: মহালয়ার পরেই 'মহিষাসুরমর্দিনী' ঋতুপর্ণা

Featured article

%d bloggers like this: