28 C
Kolkata

TMC: ”মমতা কৃষ্ণ, অভিষেক অর্জুন’, যুবরাজের ‘ব্যক্তিগত মতামত’ নিয়ে মুখ খুললেন মদনও

নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা আবহ নিয়ে তোলপাড় হচ্ছে তৃণমূলের রাজনীতি। দলের অন্দরেই তৈরি হয়েছে কোন্দল। ‘ঠাণ্ডা লড়াই’ চলছে কুণাল ঘোষ বনাম কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। যে যজ্ঞে অগ্নিসংযোগ ঘটিয়েছেন আরামবাগের সাংসদ অপরূপা পোদ্দার। এরই মধ্যে মুখ খুললেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রও। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘অর্জুন’ এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রথের সারথি ‘শ্রীকৃষ্ণ’ বলে মন্তব্যে করেছেন তিনি। অন্যদিকে, যে নির্বাচন করার জন্য এতো মরিয়া হয়ে উঠেছিল শাসক দল, তাকেই পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছে তারা।

অভিষেকের ডায়মন্ড হারবার মডেল নিয়ে একাংশ প্রশংসা করেছে। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাঁর লোকসভা কেন্দ্র ডায়মন্ড হারবারে সমস্ত রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় সমাবেশ বন্ধ থাকবে বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছেন অভিষেক। অন্যদিকে, শুক্রবার একদিনে নিজের কেন্দ্রে ৫৩ হাজার করোনা পরীক্ষা করিয়ে তাকে ট্যুইটে ‘রেকর্ড’ বলেছেন অভিষেক। কিছুদিন আগেই ‘ব্যক্তিগত মতামত’ ব্যক্ত করা নিয়ে অভিষেককে দলের অন্দরে যেমন সমর্থন করা হয়েছে তেমনই বিরোধও হয়েছে। এই প্রসঙ্গে মদন মিত্র বলেন, ”তোমায় মনে রাখতে লড়াইটা তোমার হলেও রথের সারথি শ্রীকৃষ্ণ। আর কৃষ্ণ হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”

আরও পড়ুন:  Weather Update: চতুর্থীতে মাটি হতে পারে বিকেলের ঘোরা
আরও পড়ুন:  Dengue: মিলছে না বেড, আতঙ্কে রোগীর পরিজনেরা

কবি শ্রীজাতর কমিতা লিখে তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় পোস্ট করেছেন, ”মানুষ থেকেই মানুষ আসে, বিরুদ্ধতার ভিড় বাড়ায়। আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ, তফাৎ শুধু শিরদাঁড়ায়।” তবে নিছকই কবিতা পোস্ট বলে মনে করছে না রাজনৈতিক মহল। এরপরই কুণাল ঘোষ একটি লেখা পোস্ট করে দুটি লাইনকে চিহ্নিত করে পোস্ট করেছেন। সেখানে লেখা, ”মনুষ্যরূপী এই মানবেরে চেনা কঠিন ভাই, অস্থি সমূহ স্থিত নিজস্থানে শিরদাঁড়াটাই নাই।” যদিও এই নিয়ে প্রকাশ্যে কেউই কথা বলেননি। কুণাল আবার ট্যুইট করেছেন, ”চ্যাপ্টার ক্লোজড”।

Featured article

%d bloggers like this: