28 C
Kolkata

”একসঙ্গে কাজ করতে হবে”, নাম করে মহুয়া মৈত্রকে কড়া বার্তা মমতার

নিজস্ব সংবাদদাতা: সাংগঠনিক সভায় নাম করে মহুয়া মৈত্রকে বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। ‘একসঙ্গে কাজ করতে হবে’ জানিয়েও দিলেন তিনি। ১৯ ডিসেম্বর কলকাতায় পুরভোট, আর এই পুরভোটে গোষ্ঠীকোন্দল যেন কোনওভাবে বাধা হয়ে না দাঁড়ায়, এর জন্যেই কৃষ্ণনগরের প্রশাসনিক বৈঠকে কড়া বার্তা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এইদিন বৈঠকে জেলা আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন মমতা। কৃষ্ণনগরের জেলা সাংগঠনিক নেতা জয়ন্ত সাহার সঙ্গে জেলার অশান্তি সম্পর্কে কথা বলেন। এরপরই মহুয়া মৈত্রর উদ্দেশ্যে বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ”মহুয়া তোমায় স্পষ্টভাবে বলছি, কে কার পক্ষে বা বিপক্ষে জেনে আমার লাভ নেই। ইচ্ছে হলে সাজিয়ে গুছিয়ে লোক ডিজিটালে, পেপারে আর ইউটিউবে পাঠিয়ে দিলাম, এই রাজনীতি বেশিদিন চলবে না। একসঙ্গে সবাইকে কাজ করতে হবে।” মমতা আরও বলেন, ”কে প্রার্থী হবে তা দল ঠিক করবে। এক লোক কখনওই বেশিদিন থাকবে না। প্রার্থী নিয়ে মতানৈক্য একেবারেই ঠিক নয়।”

আরও পড়ুন:  DA: 'ডিএ কর্মীদের প্রাপ্য' হাইকোর্টকে চ্যালেঞ্জ জানাতে সুপ্রিম পদক্ষেপ রাজ্যের
আরও পড়ুন:  Nitish Kumar: নীতিশের সাথে বৈঠক সোনিয়ার

কিন্তু হঠাৎ কেন মহুয়ার প্রতি কড়া বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো? মূলত কিছুদিন আগেই সরকারের তরফ থেকে ঘর বানিয়ে দেওয়াকে কেন্দ্র করে বচনা শুরু হয় কৃষ্ণনগরে। তবে এই নতুন নয়। এর আগেও কৃষ্ণনগরের একাধিক প্রবীণ নেতা অভিযোগ তুলেছিলেন, মহুয়া কোনওরকম যোগাযোগ না রেখেই কাজ করছেন। ফলে দলের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হচ্ছে। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের পর মহুয়া মৈত্রকেই গোটা নদিয়া জেলার দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপরই বচসা ধীরে ধীরে চরমে ওঠে। আপাতত কৃষ্ণনগরের সাংসদ গোয়ার দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। এরইমধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মিটিয়ে একসঙ্গে কাজ করার বার্তা দিয়েছেন মমতা।

Featured article

%d bloggers like this: