23 C
Kolkata

Mamata Banerjee : বিধানসভায় উষ্মাপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইচ্ছে থাকলেও নিয়োগে করতে পারছেননা তিনি । তার মূল কারণ হচ্ছে একের পর এক মামলা। যার কারণে নতুন নিয়োগের ক্ষেত্রে বার বার হচ্ছে স্থগিতাদেশ । বৃহস্পতিবার বিধানসভায় দাঁড়িয়ে সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে আদালতের হস্তক্ষেপ নিয়ে এভাবেই উষ্মাপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি বিচার ব্যবস্থার উদ্দেশ্যে অনুরোধ জানিয়ে বললেন,’বিচারের বাণী যেন নিভৃতে না কাঁদে।

এদিন অধিবেশনে রেশন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের প্রেক্ষিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে জানান,’ তিন মাসের মধ্যেই আমরা নিয়োগ শেষ করতে চাই। কিন্তু যখনই আমরা লোক নিতে চাইছি তখনই কেউ না কেউ কোর্টে চলে যাচ্ছে। যার কারণে আদালত থেকে বারবার স্থগিতাদেশ আসছে এবং সেই কেস ফাইল লড়তে লড়তেই সব টাকা চলে যাচ্ছে।’ এরপর বিধানসভার মাধ্যমে কোটির কাছে আবেদন করে তিনি বলেন,’ আদালত এমন কিছু করুক যাতে মানুষের সুবিধা হয়। পাবলিক চাই দুয়ারের রেশন। দুয়ারে রেশনে বাঁধা দিল । ৪৮০ কোটি টাকা ইনভেস্ট হিসেবে দেওয়া হয়েছে দুয়ারের রেশনের জন্য। ডিলারদের সঙ্গে আমি নিজেই মিটিং করেছি। ৯৯% লোক ভালো থাকলেও ১% লোক মনে করে আমি একা খাব । কারোর গায়ের জোরে কাছে আমি মাথা নত করব না। দুয়ারের রেশন হবেই।’

আরও পড়ুন:  Suvendu Adhikari: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার প্রকল্পে অন্য নাম দেখলেই জানান শুভেন্দু অধিকারীকে

এরপর পর্যটন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানিয়েছেন, রাষ্ট্র সংঘের মঞ্চে রাজ্যকে পর্যটন গন্তব্য হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। সাংস্কৃতিক পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে বিশ্বের মধ্যে প্রথম স্থান পেয়েছে এই রাজ্য। সেই স্বীকৃতির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,’ রাজ্য সরকার চায় বিদেশি পর্যটকদের বেশি করে রাজ্যে আসুক। ‘ এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন, উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা সুগম করতে ৩,০০০ কোটি টাকা ব্যয় করা হচ্ছে । মাহেশ, ফুরফুরা শরিফ, তারকেশ্বরের মত বিভিন্ন তীর্থ স্থানে যোগাযোগ বাড়ানোর ক্ষেত্রেও মমতার সরকার পদক্ষেপ করেছে। এমনকী, জঙ্গল মহলকে কেন্দ্র করে সার্কিট ট্যুরিজমের প্রসার ঘটাতে সরকারের পদক্ষেপের কথাও তিনি তুলে ধরেন। রাস্তাঘাট নিয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ১১ বছর আগে উত্তরবঙ্গে কিছুই ছিলনা। এখন সেখানে সচিবালয় থেকে হেলিপ্যাড সবই তৈরি হয়েছে।

আরও পড়ুন:  Jalpaiguri : জলপাইগুড়ি থেকে উদ্ধার বিপুল পরিমানে টাকা

উল্লেখ্য, যেদিন বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ প্রক্রিয়ায় আদালতের হস্তক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন করেছেন । সেদিনই অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করে বেআইনি শিক্ষকদের চাকরি বাঁচানোর সিদ্ধান্ত কার, তা নিয়ে রাজ্যের শিক্ষা সচিবের জবাব তলব করেছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। বস্তুত এই মুহূর্তে হাই কোর্টে নিয়োগ দুর্নীতি সংক্রান্ত এমন বহু মামলায় লড়তে হচ্ছে রাজ্য সরকারকে।

Featured article

%d bloggers like this: