28 C
Kolkata

ফুটবলে বিনিয়োগ করে এক মরশুম পরেই কি মোহভঙ্গ ?

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিনিয়োগকারী শ্রী সিমেন্ট এবং ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তাদের নজিরবিহীন টানাপোড়েন এখনো অব্যাহত। বুধবার দুই গোষ্ঠীর সমর্থকদের মারামারিতে যা কদর্য রূপ নিয়েছে। ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তাদের বক্তব্য ‘দ্রুত মাঠে দল নামাতে আমরা বদ্ধপরিকর।

তবে স্পোর্টিং রাইটস তো আমাদের কাছে নেই। সমর্থকদের এটা বোঝা উচিত।’ এই অচলাবস্থার জন্য ক্লাবের তরফ থেকে পুরোদস্তুর দায় ঠেলে দেওয়া হয়েছে বিনিয়োগকারী সংস্থার দিকে। বারবার বার্তা দিলেও আলোচনায় বসতে অস্বীকার করেছে বিলগ্নিকারী সংস্থা। প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি ফুটবলে বিনিয়োগে মোহভঙ্গ হয়েই নিজেদের গুটিয়ে নিতে চাইছে শ্রী সিমেন্ট?

ক্লাবের তরফে বলা হচ্ছে, সঠিকভাবে ক্লাব পরিচালনার উদ্দেশ্য থাকলে আক্রমণাত্মক একের পর এক পয়েন্ট সংযোজন করত না শ্রী সিমেন্ট। ক্লাব বারবার আলোচনায় বসতে উদ্যোগী হলেও পিছিয়ে গিয়েছে শ্রী সিমেন্ট। ক্লাব যাতে মূল চুক্তিপত্রে সই না করতে বাধ্য হয়, সেই জন্যই কি নমনীয় হওয়ার পথে না হেঁটে একের পর এক আপত্তিকর একের পর এক পয়েন্ট যোগ করেছে শ্রী সিমেন্ট!

আরও পড়ুন:  East Bengal : লিগের প্রথম ম্যাচেই প্রিয়ন্তের দস্তানায় আটকে গেল লাল হলুদ
আরও পড়ুন:  Jhulan Goswami : কলকাতায় ফিরে বিশ্বকাপ না জেতার আক্ষেপ ঝুলনের মুখে

বিনিয়োগকারী সংস্থার তরফে বারবার বলা হয়েছে, স্পোটিং রাইটস ফেরত নিতে হলে, ক্লাবকে টাকা খরচ করতে হবে। কারণ ইতিমধ্যেই প্রথম মরশুমে ৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে শ্রী সিমেন্ট। ক্লাবের বক্তব্য পরিষ্কার, মৌ স্বাক্ষরের ভিত্তিতে দল গঠন করেছে শ্রী সিমেন্ট।

বিনিয়োগ করার সঙ্গেই ইস্টবেঙ্গলের মত আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ব্যবহার করতে পেরেছে তাঁরা।ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, ফুটবলে বিনিয়োগ করে এক মরশুম পরেই মোহভঙ্গ ঘটেছে শ্রী সিমেন্টের।

Featured article

%d bloggers like this: