28 C
Kolkata

পরিবারের চার সদস্যকে খুন করে পুঁতে রাখার অভিযোগ ছোট ছেলের বিরুদ্ধে

নিজস্ব সংবাদদাতা : চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের কালিয়াচক থানার পুরাতন ১৬ মাইলের গুরুটোলা গ্ৰামে। অভিযুক্তের নাম মহম্মদ আসিফ মেহবুব। বাবা, মা, বোন ও দিদাকে খুনের অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান কয়েক দিন নয়, সম্ভবত কয়েক মাস আগে খুনগুলি করেছে অভিযুক্ত। স্থানীয় সূত্রে খবর, গত তিন-চার মাস ধরে ওই বাড়ির চার সদস্যকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছিল না।

আসিফকে সেই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে এড়িয়ে যেতে থাকে সে । বাড়ির সদস্যরা বাইরে ঘুরতে গিয়েছেন বলে জানায়। তবে গত কয়েকদিন ধরে অভিযুক্তের গতিবিধি দেখে স্থানীয়দের মনে সন্দেহ দানা বাঁধে। কার্যত সমাজবিচ্ছিন্ন হয়ে থাকত অভিযুক্ত। এমনকী তার বাড়ির ত্রিসীমানায় কাউকে প্রবেশ করতে দিত না সে। নজরদারির জন্য বাড়ির চারপাশে সিসিটিভি লাগানো হয়।অবশেষে সামনে এল আসল ঘটনা।

আরও পড়ুন:  Dengue: মিলছে না বেড, আতঙ্কে রোগীর পরিজনেরা
আরও পড়ুন:  #MadanMitra: শুভেন্দু, দিলীপের ছবিতে মাল্যদান করলেন মদন মিত্র

কীভাবে খুন করেছিল অভিযুক্ত? তার বিবরণ রীতিমতো হাড় হিম করা। জেরায় আসিফ জানিয়েছে যে, কফিনের মধ্যে একে একে চারজনের হাত পা মুখ বাঁধে জীবন্ত অবস্থায় ঢোকায় সে। এরপর মাটির খুড়ে সেই কফিন রাখা হয়। তারপর ওই গর্তে জল ঢেলে দেওয়া হয়।পুলিশ সূত্রে খবর, নিজের বড় দাদার সঙ্গেও বিবাদ ছিল আসিফের। দাদাকেও নাকি খুনের হুমকি দিয়েছিল অভিযুক্ত। তবে, কলকাতায় চলে আসায় এযাত্রায় রক্ষা পেয়েছে সে।

কয়েক মাস ধরে বাবা-মা, দিদা ও বোনের দেখা না মেলায় পুলিশে অভিযোগ করে অসিফের দাদা। সেই ঘটনার তদন্তেই এই চাঞ্চল্যকর খুনের ঘটনার রহস্যভেদ হয়।সম্পত্তিগত বিবাদ, নাকি অন্য কোনও কারণ- কী জন্য এই নৃশংস হত্য়াকাণ্ডের ঘটনা? খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:  Howrah Municipality Area: প্যারাসিটামল নিলেই নথিভুক্ত করতে হবে নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর

আসিফের ঘর থেকে উদ্ধার হয়েছে ল্যাপটপ, একাধিক ফোন, সাউন্ড সিস্টেম, টিভি, সিসি ক্যামেরা সমেত বহু অত্যাধুনিক গ্যাজেট। জানা গিয়েছে, ল্যাব তৈরি করেছিল অভিযুক্ত। কী কাজে এইসব অত্যাধুনিক গ্যাজেট ব্যবহার করা হত তার অনুসন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:  Durga Puja: মণ্ডপে যাবার আগেই প্রতিমার উপর দুষ্কৃতি হামলা, মাথায় হাত শিল্পীদের

Featured article

%d bloggers like this: