33 C
Kolkata

হুগলীর চন্ডীতলায় আধার সংশোধন কেন্দ্র রমরমিয়ে চলছে

নিজস্ব সংবাদদাতা: চন্ডীতলায় ভুয়ো আঁধার সংশোধন কেন্দ্রের হদিশ।আঁধার সংশোধন করতে লাগছে ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা।
চন্ডীতলা এক নম্বর ব্লকের ভগবতী পুর বাজার এলাকায় ভুয়ো আঁধার সংশোধন কেন্দ্র খুলে রম রমিয়ে চলছে আঁধার কার্ড সংশোধনের কাজ।আঁধার সংশোধন করতে কারো কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে পাঁচ শো আবার কারো কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে হাজার টাকা।
স্থানীয় দের অভিযোগ সরকারি ভাবে আঁধার সংশোধন করতে গেলে যেখানে নাম মাত্র ৫০ টাকা দিতে হয় সেখানে কিভাবে এরা এত টাকা নিচ্ছে এবং সরকারি অনুমোদিত আঁধার সংশোধন কেন্দ্র ছাড়া কিভাবে একটি দোকানে আঁধার সংশোধনের কাজ হচ্ছে।
পুলিশ প্রশাসনের নজর এড়িয়ে কি চলতে পারে অবৈধ ভাবে আঁধার সংশোধনের কাজ প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে!
যদিও দোকানের মালিক বুবাই রায় এর দাবি সাধরণ মানুষের সুবিধার্থে আঁধার সংশোধন করছেন যে যেমন টাকা দিচ্ছে সেটাই নিচ্ছেন।তবে বৈধ কোনো অনুমোদন নেই।
তবে কিভাবে হচ্ছে আঁধার সংশোধন ?

আরও পড়ুন:  SSC Scam : ১২ ঘন্টার ম্যারাথন জিজ্ঞসাবাদ পার্থর জামাইকে
আরও পড়ুন:  #TeachersDay: বিদ্যাসাগরের জন্মদিনে বাংলায় শিক্ষক দিবস ঘোষণার আর্জিতে সমর্থন

আঁধার সংশোধন করার জন্য শুধু মাত্র ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসের কোন সরকারি কর্মীকে ইউনিক ডিভাইস আইডেন্টিফিকেশন (UDI) আই ডি দেওয়া হয় যার মাধ্যমে আঁধার সংশোধন করতে পারেন সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মী এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরেই।
সূত্রের খবর সেই UDI লক্ষ লক্ষ টাকায় বিক্রি করে দেন সরকারি কর্মীরা।আবার কোনো কোনো udi হ্যাক করেও আঁধার সংশোধন করার কাজ চলছে হাটে বাজারে।আর এই ভাবেই আঁধার সংশোধনের নামে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার আর্থিক প্রতারণার ঘটনা ঘটছে।

ভগবতী পুরের ভুয়ো আঁধার সংশোধন কেন্দ্র প্রসঙ্গে চণ্ডীতলার এক নম্বর ব্লকের আধিকারিক নরোত্তম বিশ্বাস জানান এই ধরণের ঘটনা এই এলাকায় আগেও ঘটেছে তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল , যদিও আবার ভুয়ো আঁধার সংশোধন কেন্দ্রের খোঁজ মেলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:  লক্ষাধিক টাকা দিয়েও মেলেনি চাকরি, অবসাদে আত্মঘাতী যুবক

Featured article

%d bloggers like this: