29 C
Kolkata

Mamata Banerjee:- ইউক্রেনে আটকে থাকা ভারতীয় পড়ুয়াদের নিয়ে কেন্দ্রকে কটাক্ষ মমতার

নিজস্ব প্রতিবেদন:- বিস্ফোরক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্লিনিক প্রশ্ন তুলেছেন সব জানা সত্ত্বেও কেন আগে উদ্যোগ নেওয়া হলো না ? ইউক্রেনে ভারতীয় পড়ুয়াদের আটকে থাকা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে একহাত নিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় সরকার এবং প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে একাধিক তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশ্ন করেন ” প্রধানমন্ত্রী তিনমাস আগে থেকে সব জানতেন। তাহলে কেন ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেননি ছাত্রদের ?”

মূলত বর্তমান পরিস্থিতিতে রাশিয়া এবং ইউক্রেন এই দুই দেশ নিয়ে উত্তাল হয়ে রয়েছে বিশ্ব। ইউক্রেনের উপর আক্রমণ এনেছে রাশিয়া। রাশিয়ার আক্রমণে ধ্বংস হয়েছে ইউক্রেনের বেশ কিছু এলাকা। এমন অবস্থায় ছাড়া ভারতবর্ষজুড়ে দেখা যাচ্ছে ভারতবর্ষের বহু ছাত্র-ছাত্রী যারা পড়াশোনার কারণে ইউক্রেনে ছিলেন। কিন্তু যুদ্ধ শুরু হওয়ার কারণে সেখানে আটকে পড়েছেন তারা। দেশে ফেরানোর ব্যবস্থার কথা জানিয়ে কাতর মিনতি করেছেন দেশের সরকারের কাছে। ইতিমধ্যে ইউক্রেনে আটকে থাকা বেশ কিছু পড়ুয়া ভারতে ফিরে আসতে সমর্থ হলেও এখনও বহু পড়ুয়া আটকে রয়েছেন ইউক্রেনে। বাংকারে লুকিয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের। চোখের জল পরছে খাবারের জন্য। মৃত্যু হয়েছে ভারতীয় পড়ুয়ার।

এইসব ঘটনা নিয়ে কেন্দ্র সরকারকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে একাধিক অভিযোগ এবং প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোট প্রচারের জন্য উত্তরপ্রদেশে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই সমাজবাদী পার্টির হয়ে প্রচার চালাবেন তৃণমূল নেত্রী। প্রচারে যাওয়ার আগে বিমানবন্দরে দাড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপির প্রচার সর্বস্বতা নিয়ে তোপ দেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেন ”বিজেপির মন্ত্রীরা বড় বড় লেকচার দিচ্ছেন। কিন্তু দেশের প্রয়োজনে কাজের কাজ করছেন না।” এছাড়াও বিমানবন্দরে দাড়িয়ে তিনি পরিষ্কার জানিয়েছেন ”দেশের প্রয়োজনে, কাউকে বাঁচানোর প্রয়োজনে আমাকে যদি যুদ্ধে যেতে হয়, তাহলে আমি যুদ্ধে যেতেও রাজি।”

আরও পড়ুন:  #ParthaChatterjeeArrest: ‘প্রকৃত মহিষাসুরমর্দিনী’ টুইট পদ্ম শিবিরের 
আরও পড়ুন:  East Bengal : শহরে কনস্টানটাইন, বিকেলেই মাঠে নামছেন ব্রিটিশ কোচ

বিমানবন্দরে দাড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান “আমি বিদেশনীতি নিয়ে বলতে চাই না। আমরা একসঙ্গে কাজ করতে চাই। কিন্তু রাজনৈতিক ইচ্ছার অভাবে ভারতের পড়ুয়ারা সমস্যায় পড়েছে। সরকার যখন যুদ্ধ সম্পর্কে সব জানত, তাহলে কেন ভারতের পড়ুয়াদের ফেরানো হল না? এটা অবহেলা, আর অবহেলাটা অপরাধ।” তবে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে ছাড়েননি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করে জানান “প্রধানমন্ত্রী তিন মাস আগে থেকে সব জানতেন। তাহলে কেন ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেননি ছাত্রদের? তাহলে তাদের বাঙ্কারে থাকতে হত না, খাবারের জন্য কাঁদতে হত না, মৃত্যুও হত না।”

উত্তরপ্রদেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভোট প্রচার নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির প্রচার নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি জানান, “রাজনীতির লড়াই তো হবেই? রাজনীতিক সভা করতে পারছেন দিনে তিন-চারটে করে। রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে এই কাজটা করা উচিত ছিল।”

আরও পড়ুন:  Kamaleswar Mukherjee: হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের শয্যায় কমলেশ্বর

প্রসঙ্গত ‘অপারেশন গঙ্গা’ নামে এক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ইউক্রেনের আটকে থাকা ভারতীয় পড়ুয়াদের দেশে ফেরানোর উদ্যোগ নিয়েছে ভারত সরকার। ইউক্রেনের সীমান্তবর্তী দেশ গুলিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কে পাঠানো হয়েছে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে। যদিও সেই ঘটনা তুলে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান,“কেন্দ্রীয় সরকার আগেভাগে সবাইকে ফেরালে খাদ্য খুঁজতে গিয়ে একজনের জীবন চলে যেত না। এটা সরকারের দায়িত্ব। ওখানে গিয়ে আবার অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী ভাষণ দিচ্ছেন। লেকচার দিচ্ছেন কিন্তু কাজের কাজ হচ্ছে না।”

আরও পড়ুন:  Delhi Crime Season 2 Trailer: পুনরায় 'দিল্লি ক্রাইম'

মূলত ইউক্রেনে আটকে থাকা পড়ুয়াদের নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কাঠগড়ায় তুলে চরম ভৎর্সনা করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইউক্রেনে আটকে থাকা পড়ুয়াদের উদ্ধারের কে সামনে তুলে যেভাবে কেন্দ্রীয় সরকার এবং দেশের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এবং কটাক্ষের সুর তার গলায় শোনা গেল তাতে উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনী প্রচারে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে যে তুমুল ঝড় তুলবেন তৃণমূল নেত্রী তাই একপ্রকার নিশ্চিত।

Featured article