25 C
Kolkata

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ধোকলা খেতে চান মমতা

নিজস্ব সংবাদদাতা : অমিত শাহ যেতে না যেতেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিযোগের জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, খতিয়ান দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন রাজ্যে উন্নয়নের তালিকা।

তিনি বলেন, বাংলাকে দুঃস্বপ্নের নগরী হিসেবে দেখাতে চাইছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।মমতা বলেন, “কেন্দ্রীয় সরকারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশের মধ্যে দারিদ্র দূরীকরণ, ১০০ দিনের কাজ, গ্রামীণ বাড়ি নির্মাণ, রাস্তা নির্মাণ, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, দক্ষতা উন্নয়ন, সংখ্যালঘু স্কলারশিপ, ই-গভর্নেন্স ও ই-টেন্ডারে বাংলা প্রথম।”

অমিত শাহর অভিযোগ, রাজ্যে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অর্থনীতি তলানিতে ঠেকেছে। শিল্পও নেই। এ রাজ্যে প্রতিদিন ৫০ হাজার টাকা ঋণ মাথায় নিয়ে জন্ম নেয় শিশু। মমতার জবাব , ভারতে জিডিপি বৃদ্ধির হার ৪.১৮ শতাংশ। কিন্তু বাংলার জিডিপি বৃদ্ধির হার ৭.২৬ শতাংশ।

আরও পড়ুন:  ত্রিপুরার আগরতলায় সভা মঞ্চ থেকে অভিষেকের বার্তা

এ ছাড়া শিল্প, কর্মসংস্থান ও কৃষিতে ভারতের তুলনায় রাজ্য অনেক এগিয়ে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা অভিযোগ করেন, সারা বাংলা ঝকঝক চকচক করছে আর কেন্দ্রের বিজেপি সরকার ঈর্ষাকাতর হয়ে এসব কথা বলা বলছে। শেষে অবশ্য আক্রমণের ঝাঁঝ কমিয়ে আনেন মমতা।

অমিত শাহ বলেছিলেন ,একসময় চিকিত্সা সামগ্রী পশ্চিমবঙ্গে উত্পাদন হত প্রায় ৭০ শতাংশ। এখন তা নেমে দাঁড়িয়েছে ৭ শতাংশে। কেন্দ্রের দেওয়া স্বাস্থ্য বিমা ৫ লক্ষ টাকা রাজ্য আটকে রেখেছে।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তরে বলেন , টোটাল ফ্রি ট্রিটমেন্ট করছি।

সরকারি হাসপাতাল ও বেসরকারি আন্ডারটেকিং। কোভিড ম্যানেজম্যান্ট সবথেকে ভাল আমরা করেছি। বেছে বেছে মোটামুটি সব ইস্যুতেই পাল্টা যুক্তি খাড়া করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সব উত্তর কিন্তু দিয়ে দিয়েছি। এর জন্য অমিত শাহর উচিত আমাকে ধোকলা খাওয়ানো।’

আরও পড়ুন:  ওভারব্রিজ ভেঙে বিপত্তি, হাওড়া থেকে বাতিল একাধিক লোকাল ও এক্সপ্রেস

Featured article

%d bloggers like this: