28 C
Kolkata

মিঠুনের মন্তব্যে হিংসা ছিল না, সাফ জানালো হাইকোর্ট

নিজস্ব সংবাদদাতা: একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। যোগদান মঞ্চ থেকে শুরু করে একাধিক প্রার্থীর প্রচারে অভিনেতার মুখে বলতে শোনা গেছে নিজের ছবির ডায়লগ। যা নিয়ে মামলা আদালত পর্যন্ত গড়ায়। এবার সেই মামলাতেই স্বস্তি পেলেন মিঠুন। তাঁর মন্তব্যে হিংসা ছিল না বলে বৃহস্পতিবার শুনানি চলাকালীন সাফ জানালো কলকাতা হাইকোর্ট।

নির্বাচনের প্রচার চলাকালীন মিঠুনের মুখে শোনা যায় ‘মারব এখানে, লাশ পড়বে শ্মশানে’, ‘জাত গোখরো’ জাতীয় বিভিন্ন ডায়লগ। এই ধরনের মন্তব্য প্ররোচনামূলক বলে মিঠুনের বিরুদ্ধে এক ব্যক্তি মানিকতলা থানায় মামলা দায়ের করেন। এই মামলাই ওঠে হাইকোর্টে। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চ এই মামলার রায়দান করে। বিচারপতি বলেছেন, ”অনেক অভিনেতাই রাজনীতিতে এসেছেন। মনোরঞ্জনের জন্যে তাঁরা এই ধরনের কথা বলে থাকেন। এর মধ্যে হিংসা ছড়ানোর কোনও উদ্দেশ্য নেই।” একই সঙ্গে আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, মন্তব্য করার প্রায় ৩ মাস পর মামলা দায়ের করা হয়। এর ফলে কোনও ভোটারের ভয় পাওয়া বা হিংসা ছড়ানোর চেষ্টার ভিত্তিতে মামলা দায়ের করানোর কোনও মানেই হয় না। এই কারণগুলি দর্শীয়েই এফআইআর খারিজ করে আদালত।

আরও পড়ুন:  Howrah: হাওড়ার পথ দুর্ঘটনায় মৃত লরি চালক
আরও পড়ুন:  CBI : শহর জুড়ে জায়গায় জায়গায় তল্লাশি সিবিআইয়ের

ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ, ৫০৪ এবং ৫০৫ নম্বর ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছিল। এই মামলা সম্পর্কে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে আঙুল তুলেছেন। তাঁর বক্তব্য, ”এই ডায়লগ মিঠুন চক্রবর্তী আগেও দিয়েছেন। তখন তৃণমূল হাততালি দিয়েছে। উনি বিজেপিতে আসতেই মনে হচ্ছে ওই ডায়লগ বলে হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা হয়েছে।”

Featured article

%d bloggers like this: