28 C
Kolkata

North 24 Pargana: বিজ্ঞানকে পিছনে ফেলল কুসংস্কার

নিজস্ব প্রতিবেদন: আধুনিক প্রযুক্তির যুগেও কুসংস্কারে বিশ্বাসী মানুষ। প্রযুক্তির সাথে সাথে মানুষ হয় তো এখনও নিজেদের মানসিকতাকে পরিবর্তন করতে পারে নি. তাই আজও কুসংস্কারাচ্ছন্নের চিত্রটি প্রকাশ্যে আসছে। এমনি এক ঘটনার কথা শুনলে হয়তো অবাকই হবেন। ভাবেন সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে আজও কি এমন ঘটনা ঘটে?

হ্যাঁ ঘটে। বিনা চিকিসৎসায় আজও আত্মবলিদান দিতে হয় অনেকেই। সেইরকম এক ঘটনার সাক্ষী হয়ে রইল দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথর প্রতিমার অচিন্ত্যনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বিষ্ণুপুর এলাকা। স্থানীয় সূত্রের খবর অনুযায়ী, শুক্রবার রাতে ঠাকুমা এবং দিদির সঙ্গেই ঘুমিয়েছিল একরক্তি। ভোররাতেই হতেই সে কেঁদে উঠে। তারপর তার ঠাকুমা ও দাদুর ঘুম ভেঙে যাওয়া তাঁরা বিছানায় বিশালাকার এক বিষধর সাপকে দেখতে পায়। তাঁরই ছোবলেই নাতি যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে বলে বুঝতে পারেন তিনি। তারপর খবর দেওয়া পরিবারের সদস্যদের।

আরও পড়ুন:  Indian Railway: খুব শীঘ্রই বদলে যাবে এই রেল স্টেশন, পাবেন বিমানবন্দরের মত সুযোগ-সুবিধা
আরও পড়ুন:  SSC Scam : আদালতে হাজির পার্থ-কল্যাণময়

এই ঘটনার পর চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে ঝাড়ফুঁকের উপরই আস্থা রাখেন প্রবীণ দম্পতি। এলাকার এক ওঝা নিরঞ্জন বরের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় শুভকে। সেখানেই চলে কয়েক ঘন্টা ধরে ঝাড়ফুঁক। তবে এতো কিছু করেও যখন শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় অবশেষে গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় একরক্তিকে। কিন্তু শেষরক্ষা হলো না। অবশেষে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। স্থানীয় সূত্রের খবর অনুযায়ী, মৃত শিশুটি বছর আটের শুভ বর। তাঁর মা-বাবা পেশায় পরিযায়ী শ্রমিক। তাঁরা রোজগারের তাগিদে দিল্লিতে থাকায় বাড়িতে ঠাকুমা এবং ঠাকুরদার সঙ্গে থাকত শুভ। তার দিদিও গ্রামের বাড়িতেই থাকে।

Featured article

%d bloggers like this: